পৃথিবী থেকে প্রায় ৫০০ কোটি আলোকবর্ষ দূরবর্তী একটি ছায়াপথে হাইড্রোজেন গ্যাসের অস্তিত্ব পেয়েছেন বিজ্ঞানীদের আন্তর্জাতিক একটি দল।

যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল রেডিও অ্যাস্ট্রোনমি অবজারভেটরিতে অবস্থিত শক্তিশালী অ্যারে রেডিও টেলিস্কোপে ধরা পড়েছে এই গ্যাসের অস্তিত্ব। দূরের কোনো ছায়াপথ থেকে এই গ্যাসের নির্গমন বলেও জানতে পেরেছেন বিজ্ঞানীরা। তাদের অনুমান, বহু বছর আগে দূর ছায়াপথে ছিল হাইড্রোজেন গ্যাস। যে নক্ষত্র থেকে এই গ্যাস নির্গত হয়েছে তা এখনো রয়েছে কিনা না সে ব্যাপারে নিশ্চিত নন বিজ্ঞানীরা। কেননা এই গ্যাস যাত্রা শুরু করেছিল ৫০০ কোটি আলোকবর্ষ আগেই। সুতরাং এত সময় পরে সে ছায়াপথ কী অবস্থায় আছে তা নিয়ে সংশয় আছে। তবে এতটা পথ কোনো বাধা না পেরিয়ে তা যে পৃথিবীর টেলিস্কোপে ধরা পড়েছে, তা বিস্মিত করেছে বিজ্ঞানীদের।

এই আবিস্কার বিজ্ঞানীদের কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কারণ এই হাইড্রোজেন গ্যাস থেকেই ছায়পথের অবস্থা সম্পর্কে ধারণা করতে পারেন বিজ্ঞানীরা। নক্ষত্র তৈরির মূল উপাদান হলো এই গ্যাস। সেক্ষেত্রে কোনো এক ছায়াপথ থেকে আসা এই গ্যাস বিজ্ঞানীদের নতুন করে ভাবাচ্ছে। কীরকম অবস্থায় থাকতে পারে একটি ছায়াপথ, তা নিয়ে গবেষণায় অনেকটাই অগ্রগতি হবে এই আবিষ্কারে। খুব সহজে অবশ্য এই কাজ সম্ভব করতে পারেননি বিজ্ঞানীরা। প্রায় ১৭৮ ঘণ্টা ধরে পর্যবেক্ষণ করার পর এই গ্যাসের অস্তিত্ব শনাক্ত করতে সক্ষম হয়েছেন।

নতুন এই আবিষ্কার বিজ্ঞানীদের কাছে বেশ সাফল্যের। এত বছর আগে আসা হাইড্রোজেন গ্যাস থেকে ছায়াপথের যে ধারণা পাওয়া যাবে, আর বর্তমানে যে তথ্য আছে তা মিলিয়ে দেখলেই বিজ্ঞানের ক্ষেত্রে যুগাম্তকারী আবিষ্কার ঘটতে পারে। এর ফলে নক্ষত্র-গ্রহদের গঠন সম্পর্কে গবেষণায় অনেকটাই এগিয়ে যাবে বিজ্ঞান।

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.