জেলার ৮ থানায় সোমবার (১ আগস্ট) থেকে অনলাইনে জিডি করা যাবে। ইতোমধ্যে চাঁদপুরের পুলিশ বিভাগ এ ব্যাপারে সব প্রস্তুতি শেষ করেছে।এ ছাড়া যেকোনো থানা থেকে সরাসরি পুলিশ সুপারের সাথে ক্ষতিগ্রস্ত যে কেউ কথাও বলতে পারবেন। দেশের মেট্রোপলিটন এলাকার বাইরে চালু হওয়া এই সুযোগ ডিজিটাল বাংলাদেশের আরেকটি পদক্ষেপ বলে মনে করা হচ্ছে। অনলাইন জিডির পাশাপাশি থানায় স্বশরীরে উপস্থিত হয়েও যে কেউ জিডি করতে পারবেন।

চাঁদপুর জেলা পুলিশের একটি সূত্র জানিয়েছেন,১ আগস্ট থেকে জিডি (সাধারণ ডায়েরি) করতে থানায় না গেলেও চলবে। ঘরে বসে অনলাইনে সাধারণ ডায়েরি করা যাবে। অনলাইন জিডি করা যাবে দলিল, সার্টিফিকেট, পরিচয়পত্র ইত্যাদি হারানো সহ মোট ৬টি বিষয়ে।

যেসব বিষয়ে তদন্তকারী কর্মকর্তাকে সরেজমিন গিয়ে তদন্ত করতে হবে না সে বিষয়গুলোতেই অনলাইনে সাধারণ ডায়েরি করা যাবে। ভবিষ্যতে নির্দেশনা পেলে অনলাইন জিডিতে আরো কোনো বিষয় অন্তর্ভুক্ত করা হতে পারে। এ ছাড়া বখাটে, মাদকসেবী বা অপরাধীদের আড্ডাস্থল বা অন্য কোনো অবৈধ সমাবেশ সম্পর্কিত অভিযোগও অনলাইনে করার সুযোগ রয়েছে।

ক্ষতিগ্রস্তরা এসব বিষয়ে সংশ্লিষ্ট থানার ই-মেইল ঠিকানায় তার জিডির আবেদনটি পাঠালে পরবর্তী ৫ কর্ম দিবসের মধ্যে জিডির নম্বর জানিয়ে দেয়া হবে। পরবর্তীতে লিখিত কপির প্রয়োজন হলে থানা থেকে তা সংগ্রহ করতে পারবেন। আবেদনকারী তার জিডির কপিটি কম্পিউটারের এমএস ওয়ার্ডের ফাইলে বা ছবি আকারে জেপিজি ফরমেটে পাঠাতে পারেন।

এ ছাড়া ক্ষতিগ্রস্ত কেউ সরাসরি পুলিশ সুপারের সাথে কথা বলতে চাইলে মোবাইলে তার সাথে কথা বলে সময় নির্ধারণ করতে হবে। পুলিশ সুপারের দেয়া সময়ানুযায়ী সংশ্লিষ্ট থানায় গিয়ে স্কাইপির মাধ্যমে তার সাথে কথা বলা যাবে। এতে ক্ষতিগ্রস্তরা সরাসরি আইনি সহযোগিতা পাবেন বলে অনেকে মনে করেন।

চাঁদপুর মডেল থানায় oc.chandpurmodelps@gmail.com, ফরিদগঞ্জ থানায়c.faridganjps@gmail.com, মতলব উত্তর থানায়oc.matlabnorthps@gmail.com, মতলব দক্ষিণ থানায়c.matlabsouthps@gmail.com, হাজীগঞ্জ থানায় oc.hajiganjps@gmail.com, হাইমচর থানায় oc.haimchar19@gmail.com ও কচুয়া থানায়oc.kachuaps@gmail.com এই ই-মেইল ঠিকানায় জিডির আবেদন করা যাবে।

জেলার ৭ থানায় যোগাযোগ করে তাদের ই-মেইল ঠিকানা পাওয়া গেলেও শাহরাস্তি থানার ঠিকানা নেয়া যায়নি। এ ব্যাপারে শাহরাস্তি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মিজানুর রহমানের সাথে কথা বললে তিনি থানার কোনো ই-মেইল ঠিকানা নেই বলে জানান।

অনলাইন জিডির বিষয়ে চাঁদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আশরাফুজ্জামান বলেন, ‘সাধারণ মানুষের কষ্ট লাঘবে থানায় অনলাইন জিডি (সাধারণ ডায়েরি) আজ থেকে চালু হচ্ছে। এতে গ্রামাঞ্চলের সাধারণ লোকজনসহ অনেকেই উপকৃত হবেন। অনলাইন জিডি চালু হওয়ায় ক্ষতিগ্রস্তদের সময় এবং অর্থ দু’দিকেই সাশ্রয় হবে বলে আমি মনে করি।’

তিনি আরো জানান, এছাড়া অনেকে প্রভাবশালী কর্তৃক ক্ষতিগ্রস্ত হলে ভয়ে অনেক সময় অভিযোগ দিতে পারে না বা সুযোগ থাকে না। সে হিসেবে কেউ যদি মনে করেন পুলিশ সুপারকে বা পুলিশের ঊর্ধ্বতন কাউকে বিষয়টি জানালে উপকৃত হবেন তখন তিনি সংশ্লিষ্ট থানা থেকে স্কাইপির মাধ্যমে তাদের সাথে কথা বলতে পারবেন। এতে সাধারণ জনগণ ও পুলিশ বিভাগ উভয়ই উপকৃত হবে। প্রকৃত ঘটনা জেনে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা দ্রুত ব্যবস্থা নিতে পারবেন।

তিনি জানান, সরকারের ডিজিটালাইজের অংশ হিসেবেই এসব ব্যবস্থা চালু হচ্ছে। আইনি প্রক্রিয়ায় যাতে মানুষের অংশগ্রহণ থাকে সেজন্যই অনলাইন জিডি ও স্কাইপিতে কথা বলার সুযোগ করা হয়েছে।

 

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.