আমি মুলতঃ থার্ড পারসন একশন গেমের ভক্ত। গত পোষ্টে  আমি আপনাদের বিখ্যাত ডেভিল মে ক্রাই নিয়ে আলোচনা করেছিলাম, আজ তাই আপনাদের সামনে আরও একটি মারাত্মক  থার্ড পারসন একশন গেম নিয়ে হাজির হলাম। দারুন এই গেমটি হল নিনজা ব্লেড। এই গেমটির কমবাক্ট ফিয়েচার ডেভিল মে ক্রাই থেকে কোন অংশে কম না। এই গেমটির মনোমুগ্ধকর একশন প্লের জন্য একে ‘সিনেমেটিক একশন’ ও ‘হ্যাক ও স্ল্যাস একশন’ এর সংমিশ্রণ ক্যাটাগরি তে রাখা হয়েছে। তাই আপনারা গেম খেলার সময় একসাথে গেম খেলা ও মুভি দেখার পূর্ণ স্বাদ পাবেন। সব সমায় টান টান উত্তেজনার মাঝে থাকবেন গেমটি খেলার সময়…… NinjaBladePC

গেমটি ডেভেলপ করে “From Software”   এবং পিসি ও এক্সবক্স ৩৬০ এর জন্য গেমটি পাবলিশ করে “Microsoft Corporation” এবং গেমটি রিলিজ পায় ২০০৮সালের ২৯ ডিসেম্বর জাপানে এবং ২০০৯ সালের ১০ মার্চ উত্তর আমেরিকায়। গেমটির নায়ক কেন্‌ ওগাওয়া -র অসাধারন মুভমেন্ট আর চোখ ধাঁধান একশন স্টাইলের জন্য গেমটি হয়ে উঠেছে এক কথায় অতুলনীয়।ninja-blade-dated-in-japan-20081201031725572_640wগেমটির পটভূমি রচিত হয়েছে ২০১৫ সাল নিয়ে। জাপানের একটি ছোট্ট গ্রাম। হঠাৎ করে সেখানে এক অজানা প্রাণী আক্রমণ করল। যারা বেঁচে থাকল তারা টোকিয়ো গবেষণা কেন্দ্রে গেল যেখানে তাদের উপর পরিক্ষা- নিরীক্ষা চলল। এসময় তারা “necrotizing fasciitis” এর লক্ষন প্রকাশ করতে লাগল। পরবর্তী পরিক্ষায় তারা এক অজানা ধরনের পরজীবী ওর্ম আবিষ্কার করল। এবং এর নাম দিল আলফা ওর্ম । এর উপর কোন ওষুধের প্রতিক্রিয়া নেই। আস্তে আস্তে সারা শহরে ছড়িয়ে পড়ল। অবস্থা এত খারাপ পর্যায়ে পৌঁছালো যে সরকার সেনাবাহিনী নামাতে বাধ্য হল, ওর্মগুলো মানুষের ভিতরে ঢুকে তাদেরকে ভয়ঙ্কর মিউট্যান্ট এ পরিণত করতে থাকল। ninja-blade-screens-20081119035328228_640wওর্ম দের রানী পুরো জাপানকে গ্রাস করতে চাইল, সেনাবাহিনী নামিয়েও যখন কাজ হল না তখন সরকার পক্ষ আবেদন করল এলিট নিন্‌জা ফোর্স এর কাছে যেখানে একদল নিনজা কে ট্রেনিং দেওয়া হয়েছে এ ধরনের পরিস্থিতি মোকাবেলা করার জন্য। যাদের মধ্যে একজন হল কেন ওগাওয়া, এ গেমের মূল চরিত্র। আর তাদের লিডার হল কেনের বাবা। কিন্তু একসময় কেনের বাবা বিশ্বাসঘাতকতা করে আর আলফা ওর্মদের সাথে যোগ দেয়, কেন কে মেরে ফেলার চেষ্টা করে। কিন্তু ভাগ্যবশতঃ সে বেঁচে যায়। তখন সে উঠে পরে লাগে তার বাবাকে ঠেকানোর জন্য। পথে থাকে অত্যন্ত ভয়ঙ্কর সব মিউট্যান্ট, কিন্তু সে সব বাধা বিপত্তিকে অতিক্রম করে এগিয়ে চলে। একসময় সে বুঝতে পারে তার বাবা আলফা ওর্ম দের রানী কে ঠেকানোর জন্য নিজেকে উৎসর্গ করেছে। রানিকে নিজের শরীরে ধারণ করে নিজেকে তাদের একজন করে নেয়। কারণ সে জানত যদি তাকে কেউ ঠেকাতে পারে সে হল কেন। আর তাকে হত্যা করা মানেই রানিকে হত্যা করা। আর সবশেষে… আর বলব না, খেলার সময় দেখতে পাবেন……ninja-blade-20090114115221264_640wগেমটির গ্রাফিক্স খুব ভাল, আর গেমপ্লে তো কথাই নেই। খেলার সময় আপনারা পাবেন তিন ধরনের সোর্ডঃ কাতানা, স্টনরেন্ডার আর টোয়াইন ফ্যাল্কন নাইভস যা এক এক সময় এক এক পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে সাহায্য করবে। আরও আছে নিনজুতসু (চরকির মত অস্ত্র) যার আছে তিন ধরনের পাওয়ার। সু্যোগ বুঝে আপনাদেরকে এসব অস্ত্রের ব্যবহার করতে হবে। আর আছে নিনজা ভিশন যা দিয়ে সময়ের গতি কমানো ও হিডেন টার্গেট দেখতে পারবেন। প্রতিটি স্টেজ এর শেষে বোনাস পয়েন্ট পাবেন যা দিয়ে অস্ত্রগুলো আপগ্রেড করতে পারবেন। আপনি ইচ্ছা করলে কেন এর পোশাক পরিবর্তন করে নিতে পারবেন। আপনি দেওয়াল বেয়ে ওঠা, দেওয়াল দিয়ে হেটে যাওয়া, গ্লাইডিং প্রভৃতি মুভমেন্ট করতে পারবেন। গেমের কিছু কিছু জায়গায় আপনাকে মটরবাইক, বিমান, ট্যাঙ্ক ব্যবহার করতে হতে পারে। ninja-blade-20090106102809975_640wএই গেমটি দুর্দান্ত ও উত্তেজনাকর একটি গেম, গেমটির প্রতিটি স্টেজের প্রতিটি মুহূর্তে আপনই চরম উত্তেজনা অনুভব করবেন। প্রতিটি স্টেজে “বস” একেবারে শেষে না থেকে প্রথম থেকে স্টেজের শেষ পর্যন্ত বসের সাথে লড়তে হবে, আর কিছুক্ষন পরপরই আপনাদেরকে সিনেম্যাটিক একশন প্লে করতে হবে যেটাকে এই গেমে বলা হয়েছে  “কিউটিই ইফেক্ট”, আর প্রতিটি স্টেজে ২-৩ টি বসের মোকাবেলা করতে হবে।  সবমিলিয়ে হলিউড একশন মুভি দেখার স্বাদ পাবেন এই গেমের মধ্য দিয়ে। প্রতিটি স্টেজে একশন আনলক করতে পারবেন, দেখতে পাবেন মনোমুগ্ধকর একশন। NinjaBlade04_MW_030309টান টান উত্তেজনাকর গেমটি একবার খেলে দেখুন, একবার খেলতে বসলে গেম ওভার না করা পর্যন্ত আর উঠতে ইচ্ছা করবে না আপনাদের। আমি হলফ করে বলতে পারি একশন প্রিয় গেমারদের জন্য এটা হবে তাদের ফেভারিট গেমের একটি। আসুন নিচে একবার এই গেমটির একটি অসাধারন ট্রেইলার দেখে নেইঃ

নিনজা ব্লেড

গেমটির রেটিং

CERO: D
ESRB: M
PEGI: 16+
GamePro     5/5 stars
GameSpot     7.5/10
X-Play     4/5

ninja-blade-tba-20080829023107693গেইমটি খেলতে যা যা প্রয়োজন হবে…

মিনিমাম সিস্টেম রিকোয়ারমেন্ট

CPU:    Pentium® 4 3.2 GHz or similar Athlon® 64
RAM:    1 GB RAM
VGA:    3D Video card with 256 MB VRAM, DirectX® 9.0c compatible with shader model 3.0
DX:    DirectX® 9.0c
OS:    Microsoft® Windows® XP/7
HDD:    5 GB free disk space
Sound:    DirectX® 9.0с compatible sound card

রিকমান্ডেড রিকোয়ারমেন্ট

OS: Windows XP/7
Processor: Intel Core 2 Duo @ 2.0 GHz / AMD Athlon 64 X2 4200+
Memory: 2 Gb
Hard Drive: 5 Gb free
Video Memory: 512 Mb
Video Card: nVidia GeForce 8800 / ATI Radeon HD 2900
Sound Card: DirectX Compatible
DirectX: 10.0c

যেসব গ্রাফিক্স কার্ড দিয়ে খেলা যাবে

ATI RADEON HD 2000/3000/4000/5000/6000 series,

NVIDIA GeForce 8/9/100/200/300/400/500 series

comments

8 কমেন্টস

  1. অসাধারন রিভিউ। উপস্থাপনা চমৎকার হয়েছে। গেমটি এক কথায় অসাধারন। সবাই পারলে এই পোষ্টের সাথে সাথে ভিডিও রিভিউ দেখে নিবেন তাহলেই বুঝতে পারবেন গেমটি কত একশন আর উত্তেজনা পূর্ন। রিভিউর জন্যে “বিপুল” ভাইকে ধন্যবাদ।

  2. রিভিউ আনেক সুন্দর হইছে………………………ধন্যবাদ

  3. এই গেম টার মত ফালতু 3rd person গেম আমি আর ২য় টা খেলি নাই।

    • ভাই আমার মনে হয় আপনি গেমটি খেলতে জানেন না, তাহলে এই কথা বলতেন না। যাই হোক আমি একবার যখন খেলা শুরু করেছিলাম, শেষ না করা পর্যন্ত উঠতে ইচ্ছা করছিল না, চেষ্টা করে দেখেন আপনারও আমার মত অনুভূতি হবে

      • আসলেই ! আমিও উঠতে পারি না গেম থেকে না শেষ করে । তাইতো ৩ দিনেই গেম অভার 🙂

  4. হুম্ম hsc এর পর এই গেম টা খেলবো। আমার ফ্রেন্ডরা বহু বার বলেছে এই গেম খেলার জন্য। আমাতত মাফিয়া ২ খেলতাছি!! মাফিয়ার মত বস গেম খুব কমই আছে!!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.