পৃথিবী প্রায় প্রতি মুহূর্তেই পরিবর্তন হচ্ছে। হঠাৎ একদিন ঘুম থেকে উঠে যদি সুনতে পান, একজন মানুষ থেকে অতিমানব যেমন, স্পাইডারম্যান বনে গেছে তবে সেখানে অবাক হবার কিছু নেই। কারন বিজ্ঞান প্রতি সেকেন্ডে যে পরিমান দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে তাতে হয়তো এমন কিছু হতে আর খুব বেশী দিন সময় লাগবে না।

দা বায়োহ্যাকার নামের এক গবেষক দল তৈরি করেছে এই অবিশ্বাস্য প্রযুক্তি। তারা গভির সমুদ্রের এক ধরনের মাছের শরীর থেকে একটি রাসায়নিক পদার্থ (সিই৬) দ্বারা নতুন এই লিকুইড তৈরি করতে সামর্থ্য হয়েছে।

270BCECD00000578-0-image-a-66_1427464528017

গবেষক দলের প্রধান “গ্রিন্ডার” সর্বপ্রথম এই প্রযুক্তি তার নিজের ওপরে পরিক্ষা করে দেখেছেন। এবং অবিশ্বাস্য ভাবে সফল’ও হয়েছেন। এই লিকুইড সল্যুশন ব্যবহার করে মানুষ একেবারে ঘুটঘুটে অন্ধকারে প্রায় ১৬৪ ফিট বা সর্বচ্চ ৫০ মিটার পর্যন্ত দেখতে পাবে। এতোদিন এই প্রযুক্তিটি শুধুমাত্র ক্যামেরার মাঝেই সীমাবদ্ধ ছিল।

তবে গবেষকদের কথা হল, প্রযুক্তিটি এখনো পক্রিয়াধিন রয়েছে । একবার সেটি সফল ভাবে সম্পন্ন করতে পারলে পরবর্তীতে সবার জন্য উন্মুক্ত করা হবে।

270C3CB100000578-0-Within_an_hour_Licina_was_able_to_see_in_darkness_for_several_ho-a-67_1427464587142

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.