হাজার বছর আগে চাইনিজদের আবিস্কৃত গান পাউডার বদলে দেয় সমরাস্ত্রের ধরন। তখনকার দিনে গ্রেনেড বোমায় ব্যবহৃত হত গান পাউডার। তবে সেগুলো খুব একটা উন্নতমানের এবং নির্ভরযোগ্য ছিলনা। আর সকল প্রযুক্তির সাথে সাথে গ্রেনেডেরও উন্নয়ন ঘটানো হয়। ধীরে ধীরে এক সময় এসে এটি পূর্নতা পায়। বর্তমানে এটি যুদ্ধক্ষেত্রে অতি প্রয়োজনীয় এবং নির্ভরযোগ্য একটি অস্ত্র।

কার্যপ্রক্রিয়ার উপর ভিত্তি করে গ্রেনেড প্রধানত দুই ধরনেরঃ

Time-Delay Grenade

এই ধরনের গ্রেনেডকে হ্যান্ড গ্রেনেডও বলা হয়। ১৯ শতকের ভয়াবহ যুদ্ধ সমূহে এ জাতীয় গ্রেনেড ব্যপক হারে ব্যবহৃত হয়েছে। টাইম ডিলেয় গ্রেনেড গুলো সাধারনত সেফটি পিন খুলে হাত দিয়ে ছুঁড়ে মারা হয় এবং একটি নির্দিস্ট সময় পর এটি বিস্ফোরিত হয়। এই সময়টি সাধারনত হয় ৩-৪ সেকেন্ড। তবে কোন কারনে ভিতরের রাসায়নিক পদার্থের গুনগতমানের পরিবর্তন ঘটলে এই সময় কম-বেশি ২-৮ সেকেন্ড হতে পারে।

time delay grenade

যেভাবে কাজ করেঃ Time-Delay গ্রেনেডগুলো সাধারনত খাঁজকাটা লোহার ধারক দিয়ে তৈরি হয়। এর ভেতরে একটি ফিউজ মেকানিজম থাকে এবং বাকি অংশে থাকে বিস্ফোরক পদার্থ। ফিউজ মেকানিজম সক্রিয় করার জন্য থাকে একটি Striker যেটি Striker Lever দিয়ে আটকানো থাকে। আর লিভারটি ধরে রাখার জন্য এতে লাগানো থাকে একটি নিরাপত্তা পিন। পিনটি খুলে দিলে Striker কে ধরে থাকা লিভারটি চাপমুক্ত হয় এবং Striker ছুটে গিয়ে আঘাত করে Percussion Cap এ। এরপর এটি কেমিক্যাল মেকানিজমকে সক্রিয় করে দেয় যা কয়েক সেকেন্ড পর ডেটোনেটরকে সক্রিয় করে। ডেটোনেটর গ্রেনেড এর ভেতরে থাকা বিস্ফোরক পদার্থ সমূহকে ডেটোনেট করে এবং বোমাটি বিস্ফোরিত হয়।

Impact Grenade

এ জাতীয় গ্রেনেড এর কার্যপ্রক্রিয়া অনেকটা উড়োজাহাজ থেকে ছুঁড়ে মারা বোমার মত। অর্থাৎ এই গ্রেনেড টার্গেটকে স্পর্শ করার পর পরই বিস্ফোরিত হয়। Impact Grenade হাত দিয়ে নিক্ষেপ করা হয় না। এটি সাধারনত গ্রেনেড লাঞ্চার থেকে নিক্ষেপ করা হয়। এছাড়াও এক ধরনের মেশিনগান রয়েছে যেটিতে সাধারন বুলেট এর বদলে ব্যবহৃত হয় ইম্প্যাক্ট গ্রেনেড বুলেট!

যেভাবে কাজ করেঃ Impact Grenade এর সম্মুখভাগে Impact Trigger নামে একটি অংশ থাকে এবং এটি স্প্রীং দিয়ে মূল কাঠামোর সাথে সংযুক্ত করা থাকে। গ্রেনেড যখন নিক্ষেপ করা হয় তখন Percussion Cap এবং Detonator কে ধরে থাকা স্প্রীংটি সামনের দিকে এগিয়ে যায়। গ্রেনেডের সামনের অংশ অর্থাৎ ইমপ্যাক্ট ট্রিগার যখন টার্গেটকে স্পর্শ করে তখন এর সাথে লাগানো Firing Pin টি Percussion Cap কে আঘাত করে এবং ডেটনেটরটি সক্রিয় হয়ে মূল বিস্ফোরককে ডিটোনেট করে দেয়। তারপরই গ্রেনেডটি বিস্ফোরিত হয়। এই গ্রনেড টাইম ডিলেয় গ্রনেড এর মত সময় নেয় না, বরং টার্গেটকে আঘাত করার সাথে সাথেই বিস্ফোরিত হয়।

মূলত এই দুই ধরনের গ্রেনেডই রয়েছে এবং এর কার্যপ্রক্রিয়ার উপর ভিত্তি করে আরও বিভিন্ন ধরনের গ্রেনেড তৈরি করা হয়।

এই পোস্টে মূলত গ্রনেড কিভাবে কাজ করে এ সম্পর্কে ধারনা দিতে চেস্টা করেছি আমার সীমিত জ্ঞান থেকে। তবে মারনাস্ত্র তৈরি ও এ সম্পর্কিত গবেষনাকে আমি বরাবরই ঘৃনা করি। এগুলো একটি সভ্যতাকে ধংস করে দেয়ার হাতিয়ার ছাড়া আর কিছুই নয়।

comments

43 কমেন্টস

  1. হুম…
    অবশেষে ইমতিয়াজ ভাই গ্রেনেড বোমার পোষ্ট টি দিয়ে হার্ডপোষ্টার হোলেন।

    খুব ই ভালো পোষ্ট হয়েছে ভাই

  2. ভাইজানের তো এই বিষয়ে ভালই জ্ঞান দেখতাছি তা ভাইজান কি জেএমবি তে আছিলেন নাকি তাগোরে ট্রেনিং করাইছিলেন? 😉

  3. অনেক কিছু জানলাম।
    তবে প্রয়োগ করতে পারব না কোনদিনও।
    ধন্যবাদ ইমতিয়াজ। অনেক সুন্দর একটি ব্লগ দেয়ার জন্য।

  4. very very imfortive post . i have got a lot of information. i am gonna try to make a real one and i will use them against my friends.third world war………………!!!

      • সত্যি কথা ভাইজান? সেটি কোথায় বাংলাদেশে না অন্য কোথাও?? সাবধান! বাংলাদেশ সরকার যেইভাবে জে এমবি সদস্য আর যুদ্ধাপরাধীদের দইরা দইরা ফাসি দিতাছে তার মধ্যে যদি আপনার নাম থাইক্কা যায় তাহলে কিন্তু ভাই রক্ষা নাই। মজা লওনের লাইগা দুঃখিত।

  5. ইমতিয়াজ ভাই তো ফাটায়ে দিলেন। বুমমমমমম!!! :shock::smile:

  6. ভাই, আপনার পড়াশুনার বিষয় জানতে চাই। আপনি যুক্তরাজ্যের কোন কলেজের?
    ভয় পাবেন না, আমি সরকার কিংবা Secret Service এর কোন সদস্য না। জানার জন্য কৌতূহল মাত্র।

    • আমি অবৈধ কিছু করিনি বা করছিও না। সুতরাং ভয় পাওয়ার কিছু নেই। আর আপনি সিক্রেট সার্ভিস এর লোক না সেটা সহজেই বোঝা যায়। বাংলাদেশের সিক্রেট সার্ভিস এত উন্নত হয়নি যে ব্লগে এসে অপরাধী খুঁজবে 😀 আর আপনি কিউবি এর লাইন ব্যবহার করছেন, সিক্রেট সার্ভিস এর লোক হলে সরকারী বিটিসিএল এর লাইন ব্যবহার করার কথা। তাছাড়া এই নামে আপনি আগেও অনেক পোস্টে মতামত দিয়েছেন 🙂 যাই হোক, আমি আপনার কৌতুহল মেটাতে পারলাম না বলে দূঃখিত। তবে আমি সমরাস্ত্র বিষয়ে পড়াশুনা করছি না এইটুকু বলতে পারি 😐

      • আপনার কাছে ধরা না খাবার ঔষধ অবশ্য ছিল, তবে মনে হয় আপনি ওয়েব সাইটের অ্যাডমিন। ভয় লাগানোর জন্য আমার কাছে অনেক লজিক ছিল, তবে পোষ্ট করার সময় মাথায় ছিল না। মনে হয় আপনার লেখা প্রথম-আলো তে পোষ্ট হয় এবং আপনার পড়াশুনার বিষয় যে বোমা না, তা আমি আগের থেকেই জানি। ডায়াল আপ আইপি না থাকলে একটু দুষ্টুমি করতাম। FBI এর আইপি কিন্তু আমার জানা আছে। যদিও তারা পাব্লিক আইপি ব্যাবহার করে, তবে google এ সার্চ করলে ভয় পেতেন 100%। আর ভুলে যাবেন না, আমার মনে হয় আপনি মিডিয়ার সাথে জড়িয়ে গেছেন। তাই আপনার ৪২ গুষ্টির ঠিকানা বের করার জন্য তেমন কষ্ট করতে হবে না। আর মজার বিষয় হল, আমার ভাইয়ার বন্ধুর IT Shop এর ওয়েবসাইট CPanel এর পাসওয়ার্ড নিয়া অনেক মজা করসিলাম।
        বিয়াদ্দবি, মাফ করবেন এবং একটু বলি যে, আমার বয়স মাত্র ১৫(আসল)। তাই কেউ আমারে সন্দেহ করবেনা। মাগার আমি Fair Way তে চলি আর আমি তেমন ভালো জানি না।
        অপেক্ষা করেন, বড় হইতে দেন। আমি আপনার ধাক্কা আবার Gift করব।
        টাটা-বাইবাই
        আসসালামুয়ালাইকুম।

  7. বলাতো যায় না কখন কোথায় কে গ্রেনেড ফেলে রেখেছে পুলিশের ভয়ে। তা যদি কখনও পেয়েযান আর যাই করেন গ্রেনেডের safety pin খুলবেন না। খুললেই সারে-সর্বনাস 🙁

  8. বস দারুন হইছে । একেকবারে ফাটাইলাই ছইন। আরও চাই………………… আপনার এই পোস্ট এর লাগি আমার টেবিলের তলের ল্যাবরটরির কাজ অনেক খানি আগাইল……।

  9. I simply want to mention I am very new to blogging and certainly loved this website. Very likely I’m likely to bookmark your blog . You actually have incredible stories. Cheers for sharing your webpage.

  10. *I’d should talk to you here. Which is not some thing I do! I quite like reading a post which will make people believe. Also, many thanks permitting me to comment!

  11. Excellent post. I was checking constantly this blog and I’m impressed! Extremely useful information specially the last part 🙂 I care for such info much. I was looking for this certain information for a long time. Thank you and best of luck.

  12. Hello, Neat post. There’s an issue with your web site in internet explorer, would test this¡K IE nonetheless is the market leader and a big component of other people will leave out your excellent writing because of this problem.

  13. of ϲourse like your wweb site however yoou need to test the
    ѕpelling on several of your posts. Many оf them are rifе with spelling prօblems and I
    find it very bothersome to inform the reality then again I will surely come back again.

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.