এ বছরের সবচাইতে আলোচিত গেম গুলোর মধ্যে অন্যতম একটি গেম প্রিভিউ নিয়ে আজকে আপনাদের সামনে এসেছি। ব্যাটেল ফিল্ড ৩ (Battlefield 3), যার সংক্ষিপ্ত নাম বিএফ ৩ (BF3)। ব্যাটেল ফিল্ড ৩ গেমটি ফার্স্ট পারসন সুটার, অ্যাকশান গেম, ডেভেলপ করেছে, ইএ ডিজিটাল ইলিউশন সিই (EA Digital Illusions CE) এবং গেম টিকে পাবলিশ করছে, ইলেক্ট্রনিক্স আর্টস (Electronic Arts.)।

আশা করা যাচ্ছে, গেমটি এ বছরের ২৫ শে অক্টোবর বের হতে যাচ্ছে। গেম টি কে সকল প্লাটফর্মের জন্য বানানো হয়েছে, অর্থাৎ গেমটি কে, উইন্ডোজ, প্লে স্টেশন ৩, এক্স বক্স ৩৬০, এবং আই ওএস (iOS) এর কথা বিবেচনা করে ছাড়া হচ্ছে।

ব্যাটেল ফিল্ড ৩, ২০০৫ এ বের হওয়া ব্যাটেল ফিল্ড ২ এর পরবর্তি পর্ব হলেও এটা কিন্তু ব্যাটেল ফিল্ড সিরিজের ১১ তম গেম (ব্যাটেল ফিল্ড সিরিজের সকল গেম গুলোর নামের তালিকা এখান থেকে দেখে নিতে পারেন।)

কাহিনীঃ

গেমের কাহিনীতে দেখানো হয়েছে, ২০১৪ সালে, সার্জেন্ট ব্ল্যাকবার্ন (SSgt Blackburn) পাঁচ সদস্যের একটি দল নিয়ে এক বিশেষ মিশনে নামেন। মিশন টি হচ্ছে, আমেরিকার একটি স্পেশাল দল, ইরানে সম্ভাব্য রাসায়নিক অস্ত্রের খোঁজে গিয়ে হারিয়ে যায়। তাদের কে নিরাপদে উদ্ধার করে নিয়ে আসা। অনেক গোলাগুলির পরে, সার্জেন্ট ব্ল্যাকবার্ন ও তার দল, এক ভয়ঙ্কর ভূমিকম্পের কবলে পড়ে। আর এ নিয়েই এগিয়ে যায়, গেমের কাহিনী।

গেম প্লেঃ

ব্যাটেল ফিল্ড ৩ এ বেশ কিছু ফিচার থাকছে, যেমন সিঙ্গেল প্লেয়ার, কো- অপারেটিভ এবং মাল্টি-প্লেয়ার মুড। এছাড়াও ব্যাটেল ফিল্ড ২ (ব্যাড কম্প্যানি) তে বাদ পড়া ফাইটার জেট এবং প্রন পজিশন থাকছে।

গেম এর ফিচার ম্যাপ এর মধ্যে থাকছে, প্যারিস, তেহরান, ইরাক, নিউইয়র্ক, ওয়েক আইল্যান্ড এবং ওমান। সর্বপরি, গেমটির সকল কমব্যাট গুলোই হবে, শহরের রাস্তায়, ডাউন-টাউন এরিয়া এবং খোলা মাঠে (ভেহিকল কমব্যাট গুলো)।

ব্যাটেল ফিল্ড ৩ তে একটি মজার ফিচার থাকছে, যার নাম ব্যাটল-লগ। একটি ফ্রি ক্রস-প্লাটফর্ম সোশ্যাল সার্ভিস, যার সাথে থাকছে বিল্ট-ইন টেক্সট এবং ভয়েস কমিউনিকেটর, গেম স্ট্যাটিকটিক্স থাকছে, এবং আপনার বন্ধু, যিনি গেম টি খেলছেন তার সাথে যোগাযোগ করতে পারবেন। তবে, ক্রস-প্লাটফর্ম বলতে, যেন ভেবে বসবেন না, আপনি এক্সবক্স ৩৬০ তে খেলছেন আর আপনার বন্ধু পিসি তে খেলছে, তার সাথে যোগাযোগ করতে পারছেন … (তা হলে মন্দ হত না কিন্তু……)

চরিত্রঃ

গেমটিতে আপনাকে দুই জন এর চরিত্রে খেলতে হবে;
১। স্টাফ সার্জেন্ট হেনরি “ব্ল্যাক” ব্ল্যাকবার্ন, ইউনাইটেড স্টেটস মেরিন কর্প এর সদস্য।
২। করপোরাল জোনাথন “জন” মিলার, একজন ট্যাঙ্ক অপারেটর।

একনজরেঃ

• ডেভেলপারঃ ইএ ডিজিটাল ইলিউশন সিই (EA Digital Illusions CE)
• পাবলিশারঃ ইলেক্ট্রনিক্স আর্টস (Electronic Arts.), সেগা (Sega)
• ইঞ্জিনঃ ফ্রস্টবাইট ২.০
• প্লাটফোর্মঃ মাইক্রোসফট উইন্ডোজ, প্লে স্টেশন ৩, এক্স বক্স ৩৬০, আই ওএস।
• রিলিজ ডেটঃ ২৫ শে অক্টোবর ২০১১ থেকে ২৮ শে অক্টোবর ২০১১
• জেনারঃ ফার্স্ট পারসন শুটার।

যা লাগবেঃ

গেমটির জন্য অফিসিয়াল ভাবে বলা হচ্ছে;

কমপক্ষে লাগবে;
অপারেটিং সিস্টেমঃ উইন্ডোজ ভিস্তা (সার্ভিস প্যাক ২)বা উইন্ডোজ সেভেন- ৩২ বিট (উইন্ডোজ এক্সপি হলে চলবে না)
প্রসেসরঃ ২ গিগাহার্জ এর ডুয়েল কোর অথবা এথলন এক্স২ ২.৭ গিগাহার্জ।
র্যা মঃ ২ গিগাবাইট।
হার্ডডিস্কঃ ২০ গিগাবাইট।
গ্রাফিক্স কার্ডঃ
এনভিদিয়াঃ ডাইরেক্ট এক্স ১০ সাপোর্ট করে এবং ৫১২ মেগাবাইট ভিডিও র্যা ম আছে এমন যেকোন কার্ড, যেমনঃ জিফোর্স ৮,৯, ২০০, ৩০০, ৪০০ এবং ৫০০ সিরিজ।
এএমডিঃ ডাইরেক্ট এক্স ১০.১ সাপোর্ট করে এবং ৫১২ মেগাবাইট ভিডিও র্যা ম আছে এমন যেকোন কার্ড, যেমনঃ রেডিয়ন ৩০০০,৪০০০,৫০০০ অথবা ৬০০০ সিরিজ।
সাউন্ড কার্ড
কীবোর্ড – মাউস
এবং
ডিভিডি রম।

রেকমেন্ডেড হচ্ছেঃ

অপারেটিং সিস্টেমঃ উইন্ডোজ সেভেন- ৩২ বিট (উইন্ডোজ এক্সপি হলে চলবে না)
প্রসেসরঃ কোয়াড কোর প্রসেসর
র্যা মঃ ৪ গিগাবাইট।
হার্ডডিস্কঃ ২০ গিগাবাইট।
গ্রাফিক্স কার্ডঃ
এনভিদিয়াঃ ডাইরেক্ট এক্স ১১ সাপোর্ট করে এবং ১০২৪ মেগাবাইট ভিডিও র্যা ম আছে এমন যেকোন কার্ড, তবে সবচাইতে ভালো হবে যদি জিটিক্স ৫৮০ ব্যবহার করা যায় (নভিদিয়া র ওয়েবসাইট এ তাই বলা আছে)।
সাউন্ড কার্ডঃ ডাইরেক্ট এক্স কম্প্যাটিবল
কীবোর্ড – মাউস
এবং
ডিভিডি রম।
মনে হচ্ছে; গেম খেলা ছেড়েই দিতে হবে … জিটিক্স ৫৮০ এর দাম, ৪২,০০০ টাকা… এর সাথে আছে স্পেশাল পাওয়ার সাপ্লাই …

আসুন দুটো ট্রেইলার দেখা যাক;

Battlefield 3 – Caspian Border Gameplay – YouTube

Battlefield 3 Premiere Gameplay Trailer – YouTube

শেষ কথাঃ

বর্তমান সময়ে আমাদের গেমিং ওয়ার্ল্ড কিন্তু দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে গেছে। এক দল গেমার পছন্দ করে ইনফিনিটি ওয়ার্ড (Infinity Ward) এর কল অফ ডিউটি – মর্ডান ওয়ার ফেয়ার ৩ এবং আরাক দল পছন্দ করছে, ইলেক্ট্রনিক্স আর্টস (Electronic Arts.) এর ব্যাটেল ফিল্ড ৩। তুমুল লড়াই কিন্তু হচ্ছে এই দুইটি গেম নিয়ে। সত্যি করে বলতে কি, আমি নিজেও কিন্তু ব্যাটেল ফিল্ড সিরিজের ভক্ত নই। আমি এর আগে শুধু মাত্র ব্যাটেল ফিল্ড ২ খেলেছি। তবে এক ফোরামের একটি কথা আমার নজর কেড়েছে, আর তা হচ্ছে,
“মর্ডান ওয়ার ফেয়ার সিরিজের গেম গুলো তে আপনি এয়ার স্ট্রাইক ডাকতে পারবেন, তবে ব্যাটেল ফিল্ড সিরিজের গেম এ আপনি নিজেই এয়ার স্ট্রাইকার।”
তো দেখা যাক,ব্যাটেল ফিল্ড৩ আমাদের কে কি উপহার দেয়।

প্রিভিউ টি কেমন লাগলো, আশা করব জানাতে ভুলবেন না। আপনাদের মন্তব্যের অপেক্ষায় থাকলাম।

সূত্রঃ ইন্টারনেট থেকে।

comments

5 কমেন্টস

  1. গেমটা যে দারুণ হবে এটা তে সন্দেহ নাই… তবে আমি দারুণ ভাবে খেলতে পারব কি না , তাতে আমার সন্দেহ আছে … কেননা আমার গ্রাফিক্স কার্ড আর প্রসেসর কিন্তু তেমন একটা সুবিধার না (শুধু মাত্র এই গেমটির জন্য 😉 )
    প্রিভিউ ভালো লেগেছে জানিয়েছেন … অনেক ধন্যবাদ আপনাকে …

  2. রিয়াজ ভাইয়ের কাছে thanks এমন গেমস এর রিভিউ দাওয়ার জননো। তবে ভাই আমাদের গরিব দেশ এর জোননোও কোয়েকটা গেমস দিয়েন( আমাদের কারো জিটিক্স ৫৮০ কেনার সামোরঠো হোবে না) 😀

    • ভাই, আপনি একেবারে আমার মনের কথা টি বলেছেন। তবে সমস্যা হচ্ছে, গেম গুলো যদি আমাদের দেশে তৈরি হত, তবে কিন্তু আমাদের আর এমন আক্ষেপ থাকত না। যা বাঁ গেম গুলো বানান, তাদের কে এই কথা টা বলা দরকার। আবার একটু দেখুন, GTX570 র দাম কত জানেন ? মাত্র ৩৫০ ডলার। হ্যাঁ আমাদের জন্য ৩৫০*৮০ টাকা, কিন্তু তাদের জন্য কিন্তু মাত্র ৩৫০ … কি আর করা ???
      তবে আপনি কিন্তু বেশ ভালো ভাবেই জিফোর্সের ৮,৯, ২০০, ৩০০ সিরিজের কার্ড দিয়ে গেমটি খেলতে পারবেন …
      ভালো থাকবেন …

  3. আমার গ্রাফিক্স কার্ড গিগাবাইটের এনভিডিয়া জিটি ৪৪০।আমারটায় কি এই গেমচলবে? আমার কনফিগারেশন হছেঃ
    Windows Se7en ultimate 32 Bit SP1
    Ram 4gb(3.24GB usable)
    Motherboard Gigabyte H61M-S2P-B3
    PROECESSOR INTEL(R) CORE(TM) i3-2100 CPU@3.10 GHZ DUAL CORE

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.