গুগল চশমা

প্রজেক্ট গ্লাস একটি রিসার্চ এবং ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রাম যা গুগল দ্বারা নির্মিত হেড-মাউন্টেড ডিসপ্লে (এইচএমডি) যা গুগল গ্লাস (Google Glass) নামে পরিচিত। ‘এক্স ল্যাব’ নামের গুগল-এর গোপন ল্যাবে একটি সর্বাধুনিক প্রযুক্তির চশমা তৈরি করা হয়েছে। গুগলের বিভিন্ন তথ্য এ ফাইটার- প্লেন স্টাইলের চশমার ডিসপ্লেতে দেখা যাবে। এ চশমায় বাটনও থাকবে। পাতলা কাঁচের তৈরি এ চশমা সাধারণ চশমার মতোই স্বচ্ছ হবে তবে যথেষ্ট স্টাইলিশ হবে বলেই জানা গেছে। এ কাঁচের সঙ্গে থাকবে কম্পিউটার ইন্টারফেস।

গুগল গ্লাস স্মার্টফোনের মতো হ্যান্ডস-ফ্রি তথ্য ডিসপ্লে করে এবং প্রাকৃতিক ভয়েস এর সাহায্যে ইন্টারনেট এ প্রবেশ করতে পারে এবং ব্রাউজ করতে পারে। আইওয়্যার টি স্টিভ ম্যান এর আইট্যাপ এর মতই। চশমার সঙ্গে অ্যান্ডওয়েডচালিত স্মার্টফোনের সংযোগ থাকবে। চশমায় ব্যবহৃত হবে অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমের সংস্করণ।গুগল গ্লাস হতে পারে পরবতী প্রজন্মের ব্লু-টুথ হেডসেট। এই চশমা ব্যবহারের ফলে একসঙ্গে ঘটবে দেখা, যোগাযোগ ও নির্দেশনার কাজটিও। দাম পড়বে এক হাজার ৫০০ ডলার।

গুগল চশমার কিছু গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য:

চশমায় ব্যবহৃত হবে অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমের সংস্করণ।
গুগল গ্লাসে অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করা হয়েছে অ্যান্ড্রয়েড ৪.০.৩ আইসক্রিম স্যান্ডউইচ। বহুমুখীতার কারণেই ই-চশমাটির জন্য অ্যান্ড্রয়েড প্লাটফর্ম বেছে নেয়া হয়েছে।
স্মার্টফোন ও ল্যাপটপ বা ডেস্কটপ কম্পিউটারের সমন্বয়ে তৈরি করা হয়েছে এই গুগল চশমা। তাই স্মার্টফোন ব্যবহারকারীরা স্বাচ্ছন্দে গুগল চশমা ব্যবহার করে ইন্টারনেট সেবা গ্রহণ করতে সক্ষম হবেন।
গ্লাসে রয়েছে এ্যানড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম যা ডান চোখে সেট করা। যার দ্বারা গুগল ম্যাপ, ভিডিও চ্যাট এবং ভয়েস কমান্ড ফিচার ব্যবহার করা যাবে।
গুগল চশমার ৭২০পি এর ক্যামেরা ডিভাইসটির সামনে সেট করা হয়েছে। যার দ্বারা ছবি তুলতে পারবেন শুধুমাত্র একটি মুখের আদেশ দিয়ে। আরো রয়েছে বিল্ট-ইন ওয়াই-ফাই।
গুগল গ্লাস এর প্লাস্টিক এর রং হবে ধূসর, কমলা, কালো, সাদা এবং উজ্জ্বল নীল। গুগল গ্লাস এর “এক্সপ্লোরার” এডিশনে থাকবে সানগ্লাস এর ছোঁয়া!
এটির দ্বারা ফার্স্ট পারসন ভিউতে কোনো ডাক্তার তার জটিল জটিল অপারেশন করতে পারবেন ঘরে বসেই।
গ্লাসটির “এক্সপ্লোরার” ভার্সনে নতুন ফিচার হিসেবে থাকছে, ওয়াই-ফাই এবং ব্লু-টুথ এর মাধ্যমে থ্রিজি ও ফোরজি ডাটা আদান-প্রদান এর সুবিধা, আরো আছে বিল্ট-ইন চিপ।
ভয়েস কমান্ড ব্যবহার করা যাবে।এছাড়াও ডুয়াল লেয়ারে থাকছে সহজে পরিবর্তনযোগ্য সানগ্লাস।

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.