প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের একসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রোগ্রাম এবং কৃষি মন্ত্রণালয়ের অধীন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর-এর যৌথ আয়োজনে ৪ জানুয়ারী ২০১৭ বুধবার সকাল ৯:৩০টায় ঢাকার খামার বাড়ীস্থ আ. কা. মু. গিয়াস উদ্দিন মিলকী অডিটোরিয়ামে কৃষি সম্প্রসারণে উদ্ভাবিত ৩টি সেবার উদ্বোধন করা হয়। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের কৃষি মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী, এমপি, উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসেবে এ সকল মোবাইল অ্যাপ ভিত্তিক সেবার উদ্বোধন করেন।বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কৃষি মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ মঈনউদ্দীন আব্দুল্লাহ্, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মহাপরিচালক শেখ ইউসুফ হারুন, এবং এ টু আই প্রোগ্রামের পলিসি এ্যাডভাইজার আনীর চৌধুরী। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোঃ হামিদুর রহমান অনুষ্ঠানটি সভাপতিত্ব করেন।

সারা দেশের কৃষি সংক্রান্ত সকল তথ্য এক জায়গায় না থাকার কারণে অনেক সময় কৃষি সম্প্রসারণ সেবা প্রদানে সমস্যা হয়। এজন্য ফসল উৎপাদনের নানা প্রযুক্তি ও অন্যান্য দরকারি কৃষি তথ্যের সন্নিবেশ ঘটিয়ে ‘কৃষকের ডিজিটাল ঠিকানা’ সফটওয়্যার তৈরি করা হয়েছে। কৃষি সম্প্রসারণ সেবা প্রদানকারীগণ কৃষকদের ফসলের সমস্যার সমাধান দেওয়ার ক্ষেত্রে নানা চ্যালেঞ্জের মধ্যে পড়েন।যেমন, শত শত ফসলের হাজারো সমস্যা, অনেক সময় কৃষক সঠিকভাবে সমস্যা বলতে পারেন না, সমস্যা সঠিকভাবে চিহ্নিত করতে পারেন না, ইত্যাদি। এজন্য ফসলের নানা সমস্যার (রোগ, পোকা-মাকড় ও সারের ঘাটতিজনিত) সমাধান সম্বলিত ছবি ভিত্তিক তথ্যভান্ডার ‘কৃষকের জানালা’ তৈরি করা হয়েছে। বালাইনাশকের নানা তথ্যের সহজলভ্য ও সহজে ব্যবহারযোগ্য তথ্যভান্ডার ‘বালাইনাশক নির্দেশিকা’ তৈরি করা হয়েছে। এই ৩টি সেবা উদ্বোধনের পাশাপাশি এই অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে আগামী ফেব্রুয়ারী মাসের মধ্যে কৃষি সম্প্রসারণে নিয়োজিত ১৫ হাজার সরকারি কর্মকর্তা তাদের আওতাধীন এলাকার কৃষকদের কাছে এই ৩টি অ্যাপ পৌঁছে দেবার মাধ্যমে ৫ লক্ষ সেবা প্রদান করার উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, ইউএনডিপি এবং ইউএসএইড-এর কারিগরি সহায়তায় একসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রোগ্রামের সার্ভিস ইনোভেশন ফান্ড এর মাধ্যমে মাঠ পর্যায়ের কৃষি কর্মকর্তাদের কাছ থেকে আসা অসংখ্য উদ্ভাবনী প্রস্তাবনা থেকে বাছাই হয়ে সেবা প্রদানে সবচেয়ে বেশি উদ্ভাবনী প্রস্তাবনা সমূহ স্বল্প আকারে স্বল্প সময়ে পাইলট প্রকল্প আকারে বাস্তবায়নের জন্যে সীমিত অনুদান পাচ্ছে।পাইলট শেষে সংশ্লিষ্ট সরকারি সংস্থার সাহায্য নিয়ে উদ্ভাবনী সেবাটি দেশব্যাপী সম্প্রসারণ করা হয়।

অনুষ্ঠানে কৃষি মন্ত্রণালয়, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সহ কৃষি সংক্রান্ত সকল প্রতিষ্ঠান, কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় এবং এটুআই প্রোগ্রামের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাগণ ও বিভিন্ন গণমাধ্যম কর্মী উপস্থিত ছিলেন।

 

comments

কোন কমেন্ট নেই

LEAVE A REPLY

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.