আলিফ লায়লার জিন বোধহয় সত্যি সত্যিই চলে আসছে! আলাদিনের চেরাগ ঘষলেই ধোঁয়ার মতো আবির্ভূত হওয়া জিন যেমন আপনার চাওয়া পূরণ করে দেয় মুহূর্তেই (গল্প অনুসারে) ঠিক তেমনই দিন এসে গেছে। পার্থক্য শুধু চেরাগের বদলে আপনার স্মার্টফোনের স্ক্রিন ঘষলেই হবে।

 

হ্যাঁ, এবার আমেরিকাতে ইউভিওনিক্স নামের কোম্পানি আপনাকে দেবে এমনই সেবা। তাহলে ব্যাপারটা খুলেই বলি। আলিফ লায়লার আলাদিনের চেরাগ এবার আপনার হাতেই। যদি আপনার থাকে আইফোন বা অ্যান্ড্রয়েড চালিত ফোন তবে ইচ্ছাপূরণে আপনাকে শুধু একটি অ্যাপ ডাউনলোড করতে হবে।

 

ইউভিওনিক্স কোম্পানির ‘এনস্কাই’ সার্ভিস নেয়ার জন্যে তাদের অ্যাপ ডাউনলোড করে নিন। এখন আপনি মেন্যু থেকে আপনার পছন্দের পণ্য অর্ডার করুন এবং লোকেশন ঠিক করে দিন। ব্যস, একটু পড়েই আপনার দুয়ারে ল্যান্ড করবে আপনার খাবার! কী অবাক হচ্ছেন? খাবার সত্যিই ল্যান্ড করবে ড্রোনের মাধ্যমে।

 

এটা এক ধরনের ড্রোন সার্ভিস। যেটা আপনার অর্ডার পেয়ে আপনার পছন্দের খাবার আপনার দুয়ারে পৌঁছে দেবে। তাদের দু’ধরনের ল্যান্ডিং ব্যবস্থা আছে। একটি হচ্ছে, এই কোম্পানির সরবরাহকৃত পলিমারের প্রিন্টেড বোর্ড। যেটা আপনি আপনার বাড়ির সামনে বা ছাদে অর্থাৎ একটি ছোট-খাট ড্রোন ল্যান্ড করতে পারে এমন জায়গায় রাখতে হবে। তাহলে ড্রোন নিজ থেকেই এই পলিমার বোর্ডের প্রিন্টেড কোডের সহায়তায় এই বোর্ডের ওপর ল্যান্ড করবে।

 

আরেকটি হচ্ছে, অ্যাডভান্স ল্যান্ডিং। এই ব্যবস্থায় আপনি ড্রোন ল্যান্ড করতে পারে এমন একটি জায়গা নির্বাচন করতে পারেন। সেক্ষেত্রে একজন কো-পাইলট এই ড্রোনকে ম্যানুয়েলি ল্যান্ড করাবেন। তবে আমেরিকাতে ড্রোন চালাতে এফএএ’র (ফেডারেশন এভিয়েশন অ্যাডমিনিস্ট্রেশন) অনুমতি নিতে হয়। যদিও ইউভিওনিক্স কোম্পানি এখন পর্যন্ত এই অনুমতি পায়নি।

 

তবে আশা করা হচ্ছে, খুব দ্রুতই এই অনুমতি তারা পাবেন। তাই ইউভিওনিক্স কোম্পানি আশা করছে এই সার্ভিস তারা আগামি বছরের দ্বিতীয় কোয়ার্টারে দিতে পারবে।

অ্যামাজন অবশ্য ইতিমধ্যে পরীক্ষামূলকভাবে ড্রোন ডেলিভারি চালু করেছে। তারা ড্রোনের মাধ্যমে ৩০ মিনিটে পণ্য ডেলিভারি সার্ভিসটি বর্তমানে দিচ্ছে কানাডা, যুক্তরাজ্য এবং নেদারল্যান্ডসে। তার মানে ভবিষ্যতে আকাশেও জ্যাম লেগে যাওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যাচ্ছে। কারণ এ ধরনের সার্ভিস যে জনপ্রিয় হবে তা বলাই বাহুল্য।

 

ধরুন আপনি এমন এক জায়গায় পিকনিকে গিয়েছেন যেখানে কোনো ভালো ফাস্টফুডের দোকান নেই। কিন্তু আপনি আপনার প্রিয় ব্র্যান্ডের পিজা বা বার্গার বা কফি পান করতে চাচ্ছেন তখন এমন একটি সার্ভিস আপনার কাছে যাদুর মতোই মনে হবে। কিংবা আপনার প্রিয়তমার আহ্লাদি কোনো ‘আবদার’ আপনি মেটাতে পারবেন সহজেই। এনস্কাই ড্রোনটি ১.২ পাউন্ড পর্যন্ত ওজন এবং স্টোর থেকে ৬ মাইল দূরত্বের মধ্যে পৌঁছাতে সক্ষম। সার্ভিস চার্জ মাত্র ৩ মার্কিন ডলার।

 

আরেকটা ব্যাপার, নিরাপত্তার বিষয়টা কিন্তু থেকেই যাচ্ছে। যত্রতত্র ড্রোনের ব্যবহার কিন্তু মানুষের নিরাপত্তাকে ফেলে দেবে হুমকির মুখে। এই ধরনের ড্রোন কিন্তু অনেক সময় বোমা বহনেও ব্যবহার করা হতে পারে। তাই আমেরিকাতে নাসা এবং এফএএ যৌথভাবে এই বিষয়গুলো নিয়ে কাজ করছে।

 

সবশেষে কথা ওই একটাই, ভালো কিছুর সঙ্গে বাই ডিফল্ট খারাপ কিছুর সম্ভাবনাও থাকবে। তাই বলে তো আর ভালো সুযোগকে ছুঁড়ে ফেলা যাবে না। নিয়তির ওপর ভর করেই সাদর অভ্যর্থনা জানাতে হয় প্রযুক্তিকে। না হলে নিজের বা প্রিয়তমার আহ্লাদি আবদার মেটাবেন কীভাবে!

 

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.