কোনো তথ্য জানার প্রয়োজন পড়লেই আমরা চলে যাই ইন্টারনেটে। গুগলে সার্চ করি, ফেসবুকে পোস্ট দেই, টুইটারে টুইট করি, ইউটিউবে ভিডিও দেখি। কিন্তু এই সবকিছুর উৎপত্তি হয়েছিল আজ থেকে ঠিক ২৫ বছর আগে ১৯৯১ সালে।

ব্রিটিশ গবেষক টিমোথি বার্নার্স-লি তখন সুইজারল্যান্ডে গবেষণারত ছিলেন। আর তাঁর হাত ধরেই চালু হয় ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ওয়েব বা ডব্লিউডব্লিউডব্লিউ। যেকোনো ওয়েবসাইটের ঠিকানা লেখার আগে শুরুতেই লিখতে হয় ডব্লিউডব্লিউডব্লিউ ডটকম। ২৫ বছর আগে টিমের এই আবিষ্কার বদলে দিয়েছে আজকের পৃথিবী।

প্রযুক্তিবিষয়ক ওয়েবসাইট ভেঞ্চারবিট জানিয়েছে, পৃথিবীতে বর্তমানে ১০৭ কোটি ওয়েবসাইট রয়েছে যার মধ্যে ৭৫ শতাংশ ওয়েবসাইট সক্রিয় নয়। ওয়েবপেজ রয়েছে ৪৭৩ কোটিরও বেশি। আর বিশ্বজুড়ে ইন্টারনেট ব্যবহার করছেন ৩৪০ কোটিরও বেশি মানুষ।

১৯৮৯ সালে ইউরোপিয়ান অর্গানাইজেশন ফর নিউক্লিয়ার রিসার্চ বা সার্নে গবেষণারত ছিলেন বার্নার্স-লি। সেই সময়ে তিনি ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ওয়েব আবিষ্কার করেন।

১৯৮৯ সালের মার্চে ইনফরমেশন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের একটি প্রস্তাব দিয়েছিলেন টিম। শুরুতে বিশ্বের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানী ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে তথ্য আদান প্রদানের জন্য গড়ে তোলা হয়েছিল ইন্টারনেট। কিন্তু পরে এর সম্ভাবনা দেখে ১৯৯১ সালে বিশ্ববাসীর জন্য ইন্টারনেট উন্মুক্ত করেন বার্নার্স-লি।

বর্তমানে ৬১ বছর বয়সী বার্নার্স-লি চান ইন্টারনেটের নিরাপত্তা। আর সে লক্ষ্যেই কাজ করে যাচ্ছেন তিনি। ২০০৪ সালে বার্নার্স-লিকে নাইটহুডে ভূষিত করেন রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ।

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.