দিন দিন ওয়ার্ডপ্রেসের উপর আমার মেজাজ চড়াও হচ্ছে । বেশ কিছু ডাটাবেজবিহীন সিএমএস দেখে এবং সেগুলোর লোড টাইম দেখে আমি হতবাক। মূলতঃ ওয়ার্ডপ্রেসের দেরি করে লোড হওয়ার মূল কারন হলো সাইট লোডের সময় অনেকগুলো ফাইলকে ডেকে নিয়ে তার পর নিজেকে প্রকাশ করে।

2010-07-16_150644

ওয়ার্ডপ্রেস লোড হওয়ার সময় কি কি করে?

  • কোন থিমটি সক্রিয় আছে তা বাছাই করে সেই থিমের হোমপেজ ও তার সাথে প্রয়োজনীয় অন্যান্য পিএইচপি ফাইল খোঁজে এবং লোড করে।
  • এখন প্লাগিন যত বেশি হয় আর সেই প্লাগিনের জন্য যে যে ফাইল থাকে সেগুলোও লোড করে ।
  • ডাটাবেজে কোয়েরী চালিয়ে সে তার প্রথম পাতার তথ্য ডাটাবেজ থেকে উদ্ধার করে।
  • প্রথম পাতায় যে কয়টা ছবি (থিমের ছবি, যেমন ব্যাকগ্রাউন্ড সহ) আছে তা লোড করে।

এই সব বেপার গুলো করতে করতে ওয়ার্ডপ্রেসের এত সময় লাগে যে আমারমতো কম গতির ইন্টারনেটওয়ারা মানুষের জন্য এটা বিরক্তের কারন হয়ে দাড়ায়। এখন এই বেপারগুলোকে একটু সুবিধামতো পরিবর্তন করে নিলে সাইট আগের চাইতে অনেক তাড়াতাড়ি লোড হবে।

১। অপ্রয়োজনীয় প্লাগিন মুছে দেওয়া

সাইটের কার্যক্ষমতা এবং নানান ধরনের নতুন নতুন ফিচার এনে দিতে প্লাগিনের প্রতি আমাদের ভালবাসা একটু বেশি। আর একটার পর একটা প্লাগিন ইন্সটল আর ব্যবহার কারার কারনে আপনার সাইটটি চালু হতে সময় নেয় অনেক। আর এ বেপারটির প্রতি মনোযোগ না দিলে ধীরগতির ওয়ার্ডপ্রেস পেয়ে ভিজিটর বিরক্ত হবে। তাই শুধুমাত্র প্রয়োজনীয় কয়েকটি প্লাগইন ছাড়া অন্যান্যগুলো মুছে দেওয়ার অনুরোধ করবো।

২। ছবি সচেতনতা

ছবির বেপারে আমরা অনেকেই উদাসহীন আপনার সাইটে কোন ছবি যুক্ত করার আগে অবশ্যই তা ইডিট করে নিতে ভুলবেন না। ওয়ার্ডপ্রেসের নতুন ভার্শনগুলোতে ছবি রিসাইজের সয়ংক্রিয় ব্যবস্থা আছে। তাছাড়াও ফটোশপ ব্যবহার করে ছবিকে একটু কেটে ছেটে বা অপটিমাইজ করে নিতে পারেন।

নিজের সার্ভারে ছবি না রেখে amazon s3 এর মত অন্য কোন সার্ভিস গ্রহন করলে ভাল হয়। ইমেজ হটলিংকিং বন্ধ করে দেয়াও একটি গুরুত্বপূর্ন ব্যাপার।

৩। ডাটাবেজ অপটিমাইজ করা

ওয়ার্ডপ্রেস ডাটাবেজ অপটিমাইজ করার মাধ্যমে ব্লগের গতি অনেকটা বাড়ানো যায়। ডাটাবেজ অপটিমাইজ করার জন্য প্রথমে ‘পিএইচপি মাই এডমিন’ কন্ট্রোল প্যানেল এ যান। তারপর ডাটাবেজ সিলেক্ট করুন। এরপর ঐ ডাটাবেজের সবগুলো টেবিল সিলেক্ট করে নিচে ড্রপডাউন মেনু থেকে ‘অপটিমাইজ ডাটাবেজ’ এ ক্লিক করুন।

৪। গতি বাড়ানোর কিছু প্লাগিন

ক. WP Super cache

এটি অত্যন্ত জনপ্রিয় একটি প্লাগিন । এর কাজ হচ্ছে পিএইচপি আর ডাটাবেজের সমন্বিত স্ক্রিপ্টগুলোকে সাধারন HTML ফরমেটে নিয়ে আসা। তাই ডাটাবেজ থেকে ডাটা উদ্ধারের সময়টা বেচে যায়। আর স্ট্যাটিক পাতা লোড হতে তো বেশ ভাল লাগে। (আমি ভাবছি ডাটাবেজ বিহীন কোন সিএমএস দিকে চলে যাবো। আমার অনেক সময় ছোট ছোট সাইটে ডাটাবেজের এত সমৃদ্ধ ব্যবস্থাপনা ব্যবহার করি যা না করলেও চলে।)

খ. WP Speedy WP

এটি আরেকটা জটিল রকমের কাজ করে। আমার জানি যতবেশি ফাইলকে ডাকে, সার্ভারের ততবেশি সময় নষ্ট হয়। তাই যাতে এত বেশি বেশি ডাকাডাকি (HTTP requests) না করে আল্পকয়েকজনের মধ্যেই এই জিনিসগুলো পেয়ে যার তার জন্য একটি সুন্দর সিস্টেম করে দেয় এই প্লাগিন। এটি একাধিক স্ক্রিপ্টকে একটি মাত্র স্ক্রিপ্টে পরিনত করে ফলে সাইটের লোড এর সময় অনেক কমে যায়। এ ব্যপারে আরও জনাতে এই লেখাটি দেখতে পরামর্শ দেব।

আশা করি কেউ বেগ বাড়াতে গিয়ে আবেগাপ্লুত হয়ে না জেনে, না শুনে প্লাগিন ব্যবহার করবেন না।এই প্লাগিনগুলো জেনে শুনে একটু পড়ালেখা করে তারপর ব্যবহার করার পরামর্শ রইলো। অনেক সময় এই প্লাগিনগুলো সারভারের সাথে বন্ধুত্ব না করতে পারলে উল্টোফল দেখা দেয়।

ওয়ার্ডপ্রেসের উপরে আমার আরও কিছু লেখা দেখতে পাবেন টিউটরিয়ালবিডির ওয়ার্ডপ্রেস বিভাগে।

ওয়ার্ডপ্রেস এর গতি বাড়ানোর জন্য আপইনি কি কি পদক্ষেপ নেন এবং পোস্টটি কেমন লাগলো তা মতামতের মাধ্যমে জানাবেন আশা করি।

comments

3 কমেন্টস

  1. ওয়ার্ডপ্রেস থীম পছন্দ করারও একটি গুরুত্বপূর্ন ব্যাপার। থীম এর কোড যত হালকা এবং কম ফিচার সমৃদ্ধ হয় ততই ভালো। আর ডাটাবেজ থেকে পোস্ট রিভিশন মুছে দিলে ডাটাবেজ হাল্কা হয়ে যায় এবং দ্রুত লোড হয়।
    সুন্দর পোস্টের জন্য ধন্যবাদ।

  2. সুন্দর পোষ্ট হয়েছে টিউটো ভাই। অনেকেই বলে যে তাদের সাইট লোড হতে অনেক সময় নেয়। আপনার পোষ্ট টি পড়ে এবার হয়ত তারা অনেক কিছু জানতে পারবে + শিখতে ও পারবে। ধন্যবাদ।

  3. WordPress এবং Joomla এর মধ্য পার্থক্য কি? যদি দুটি software একই ধরনের হয়, তাহলে কোনটি ব্যবহার করে অধিক সফল হওয়া যাবে ? ধন্যবাদ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.