ফায়ার চ্যাট

এমন যদি হয়,মোবাইলে নেটওয়ার্ক সিগনাল নেই কোনও, নেই ইন্টারনেট কানেকশনও। সেই সময় কাছের কারও সঙ্গে জরুরি যোগাযোগ করা দরকার। কী করবেন? এই রকম পরিস্থিতির কথা ভেবেই ওপেন গার্ডেন নামের এক মার্কিন সংস্থা তৈরি করেছে এক অভিনব অ্যাপ,যেটির নাম ফায়ার চ্যাট(fire chat)।

তাহলে কি এই অ্যাপ মোবাইল নেটওয়ার্কের আদর্শ বিকল্প হিসেবে কাজ করতে সক্ষম? না,তা নয়। অ্যাপটির কিছু সীমাবদ্ধতা রয়েছে নিশ্চয়ই। আসলে এই অ্যাপ কাজ করে ব্লুটুথ বা ওয়াই ফাই-এর সাহায্যে অন্য মোবাইলের সঙ্গে একটি পিয়ার-টু-পিয়ার নেটওয়ার্ক তৈরির মাধ্যমে। ফলে এই অ্যাপের সাহায্যে সফলভাবে কোনও মেসেজ কোনও মোবাইলে পাঠাতে গেলে কয়েকটি শর্ত পূরণ করতে হবে। যেমন:

১. যে মোবাইলে মেসেজ পাঠাতে চাইছেন সেটিতেও আপনার মোবাইলটির মতোই ব্লুটুথ বা ওয়াই ফাই অন থাকতে হবে।

২. সেই মোবাইলটিকে আপনার ফোনের ব্লুটুথ পরিধির (সাধারণভাবে ২০০ ফুট) মধ্যে থাকতে হবে।

তাহলে আর এই অ্যাপের সুবিধা কী? নির্মাণকারী সংস্থা ওপেন গার্ডেন-এর তরফে বলা হয়েছে, অ্যাপটি প্রাথমিকভাবে বানানো হয়েছিল ত্রাণকর্মীদের কথা ভেবে। কারণ অনেক সময়েই কোনও একটি ছোট এলাকায় এমন পরিস্থিতিতে তাঁদের কাজ করতে হয় যেখানে মোবাইল নেটওয়ার্ক প্রবেশ করতে পারে না। পরে দেখা যায়, সাধারণ মানুষের জীবনেও এই অ্যাপের উপযোগিতা রয়েছে। আপনি যদি আপনার নিকটবর্তী পাড়া-প্রতিবেশীদের বা বন্ধু-বান্ধবদের সঙ্গে একবার ব্লুটু‌থ বা ওয়াই ফাই-এ নেটওয়ার্ক তৈরি করে নিতে পারেন তাহলে এই অ্যাপ এর সাহায্যে দিনের পর দিন মেসেজ পাঠানো যাবে। মেট্রোরেল বা এরোপ্লেনেও নিজের সিট থেকে দূরে বসা আত্মীয়,বন্ধুদের মেসেজ পাঠাতে সাহায্য করবে এই অ্যাপ।

গুগল প্লে স্টোর থেকে বিনামূল্যে ডাউনলোড করা যাবে এই অ্যাপটি। ডাউনলোড এবং ইনস্টল হয়ে গেলে অন করে দিন আপনার মোবাইলের ব্লুটুথ অথবা ওয়াই ফাই(ইন্টারনেট কানেকশন না থাকলেও)।ব্যস্, আপনার কাজ শেষ। এবার এই অ্যাপের সাহায্যে আপনি নিশ্চিন্তে পাঠাতে পারবেন এসএমএস।

 

 

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.