রোবট বলতে এখন আর শুধু শিল্পকারখানায় ব্যবহৃত রোবটকে বোঝায় না। বরঞ্চ রোবটকে এখন কৃত্রিম বুদ্ধিমত্ত্বা সম্পন্ন হিসেবে তৈরি করায় গৃহস্থালি কিংবা অফিসিয়াল কাজে মানুষের বিকল্প হিসেবে রোবট ব্যবহার করা হচ্ছে।

ওয়েটার রোবট, লেখক রোবট, সেক্স রোবট, খেলোয়াড় রোবট, আইনজীবী রোবট- এ ধরনের পরিচিত ইতিমধ্যে পেয়েছে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্ত্বা সম্পন্ন বেশ কিছু রোবট। আর এবার কাস্টমস অফিসার হিসেবেও কাজে লাগানো হলো যন্ত্রমানবকে।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের খবরে বলা হয়েছে, চীনে সম্প্রতি কাস্টমস কর্মকর্তা হিসেবে ১০টি রোবটকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। অত্যাধুনিক প্রযুক্তির এই রোবটগুলো সন্দেহভাজন কাউকে চিহ্নিত করার পাশাপাশি অ্যালার্মও বাজাতে সক্ষম। দক্ষিণ চিনার গুয়াংডং অঞ্চলের গোঙ্গবেই, জুহাইয়ের হেঙ্গকিন ও জোহনসাং বন্দরে কাস্টমস কর্মকর্তা হিসেবে ১০টি রোবট মোতায়েন করা হয়েছে।

জিয়াও হ্যায় নামক এসব আধুনিক রোবট মানুষের মতো চলাফেরা, কথাবলা, কথা শোনা এবং শুল্ক সংক্রান্ত যেকোনো প্রশ্নের উত্তর দিতে সক্ষম। ভাষার ওপর তাদের দক্ষতা অবাক করার মতো। দেশ-বিদেশ থেকে চিনা বন্দরগুলোতে যেহেতু পণ্য নামে, তাই ২৮টি ভাষায় কথা বলায় পারদর্শী করে তোলা হয়েছে রোবটগুলোকে। জাপানি, ইংরেজি থেকে শুরু করে প্রায় সব আর্ন্তজাতিক ভাষায় কথা বলতে সক্ষম।

গতমাসে ব্যা গুয়াংডোঙ বিমানবন্দরে নিরাপত্তাকর্মী হিসেবে এক রোবটকে নিয়োগ করেছিল চিন প্রশাসন। আর এবার কাস্টমস অফিসে নিয়োগ করা হলো রোবট। কাস্টমস কর্মকর্তা হিসেবে যন্ত্রমানবরা ভালোই কাজ করবে বলে আশাবাদী সেখানকার প্রশাসন।

comments

কোন কমেন্ট নেই

LEAVE A REPLY

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.