আজকে আবার নতুন একটা সিরিজ পোস্ট শুরু করার জন্য বসলাম। নিজের পিসি ব্যবহার করছি প্রায় ১৪ মাস হলো। আমার লিনাক্স জীবনের বয়সও সমানই। এই সময়ের ভিতর অনেকবার আটকে গেছি। সমস্যা সমাধাণের জন্য নেট ঘেটেছি। মূলত প্রথম ৪-৫ মাস প্রচুর ইনফরমেশন সংগ্রহ করেছি। সেগুলোই আবার ইবুক আকারে রেখে দিয়েছিলাম। আজকে আমার ড্রপবক্সের ইবুক ফোল্ডার ঘাটতে গিয়ে হঠাৎ করে একটা চিন্তা মাথায় আসলো। আমি এতদিন যে তথ্যগুলো সংগ্রহ করেছি সেগুলো নিয়ে একটা ধারাবাহিক পোস্ট চালু করার কথা। যেই ভাবা সেই কাজ। শুরু করলাম। সাথে আছে আমার ইবুকের উবুন্টু ফোল্ডারের পিডিএফ গুলা আর আমার ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা। আর অবশ্যই আপনারা।

তাহলে শুরু করি। ও আরেকটা কথা। আমি চিন্তা করছি পোস্টগুলো ছোট ছোট টিপস আকারে দিব। কোন পর্বে হয়তো ১০ টা কোন পর্বে হয়তো ২ টা। এজন্য টিপসগুলো মোটামুটি ছোট আকারে হবে বলেই মনে হচ্ছে। তবে কোন টিপস যদি বুঝতে সমস্যা হয় তাহলে কমেন্ট আকারে সেটা জানিয়ে দিবেন, আমি পরের পোস্টে চেষ্টা করব সেটা ব্যাখ্যা করার। তাহলে শুরু করলাম।

উবুন্টুতে রাইট ক্লিক করে কোন ছবিকে ওয়ালপেপার হিসেবে সেট করুন

সাধারণত উইন্ডোজের মত উবুন্টুতে এক ক্লিকে কোন ছবিকে ওয়ালপেপার বানানোর অপশন থাকে না। আপনি এটা এনাবল করে নিতে পারেন। এজন্য প্রথমে সিনাপটিকে যান। সেখানে সার্চ বক্স থেকে nautilus-wallpaper লিখে সার্চ করুন এবং ইন্সটল করে ফেলুন। এবার লগআউট করে আবার লগইন করুন। এখন যেকোন ছবির পাশে রাইট ক্লিক করলেই নতুন একটা অপশন পাবেন কনটেক্সট মনুতে।

আপনার সর্বশেষ টাইপকৃত কমান্ডগুলো দেখুন এবং পুনরায় ব্যবহার করুন

আপনি টার্মিনালে কি কি কমান্ড ব্যবহার করেছেন তা জানার জন্য টার্মিনালে History টাইপ করে এন্টার চাপুন। এর ফলে আপনার হোম ফোল্ডারে .bash_history নামে একটা নতুন হিডেন ফাইল তৈরী হবে যেখানে ১০০০ কমান্ড রেকর্ড করা থাকবে। আপনি টার্মিনাল থেকে less ব্যবহার করে একটা পাইপিং করে নিতে পারেন এই কমান্ড দিয়েঃ history|less. এখন এই লিস্ট থেকে কোন কমান্ড পুনরায় ব্যবহার করতে চাইলে একটা ! এরপর কাংক্ষিত কমান্ড নম্বরটা টাইপ করলেই হবে। যেমন ৫৮৩ নম্বর কমান্ডটা ব্যবহার করতে চাইলে লিখুন !583

টটেম ও রিদমবক্সে ভিজুয়ালাইজেশন যোগ করুন‌

আপনি যদি টটেম বা রিদমবক্সে আকর্ষণীয় ভিজুয়ালাইজেশন যোগ করতে চান তাহলে সিনাপটিক থেকে libvisual-0.4-plugins নামক প্যাকেজটা ইন্সটল করে ফেলুন। এবার টটেম এ এডিট>প্রেফারেন্স এ যান। এবার ডিসপ্লে ট্যাব এ যান। এখন Type of Visualization থেকে নিজের পছন্দেরটি নির্বাচন করুন। রিদমবক্স এর জন্য ভিউ>ভিজুয়ালাইজেশন এ যান এবং পছন্দেরটি নির্বাচন করে দিন আর উপভোগ করতে থাকুন স্ক্রীণ  ভিজুয়ালাইজেশন।

এক ক্লিকে মিটরের রেজুলেশন পরিবর্তন করুন

মনে করুন, আপনার একটি ল্যাপটপ আছে যা দিয়ে আপনি নিয়মিত প্রেজেন্টেশন করেন। তাহলে আপনাকে বারবার রেজুলেশন বদলাতে হবে। উবুন্টুতে উইন্ডোজের মত এই কাজটা অতি সহজেই করা যাবে যদি আপনি একটু ট্রিকস খাটান। সিনাপটিক থেকে resapplet টা ইন্সটল করে ফেলুন। এবার এটাকে কম্পিউটার শুরুতে চালু করার জন্য এটাকে স্টার্টআপে যোগ করতে হবে। এজন্য System>Preferences থেকে Startup Program এ যান। এবং Add এ ক্লিক করুন। কমান্ড ফিল্ড এ লিখুনঃ resapplet এবার সেভ করে বেরিয়ে আসুন। লগআউট করে আবার লগইন করুন। এবার দেখুন নেটওয়ার্ক ম্যানেজারের পাশে একটি নতুন আইকন এসেছে। ব্যস, ওখানে ক্লিক করে আপনার পছন্দের রেজুলেশন বেছে নিন।

কম্পিউটারের পাওয়ার ইউজেস মনিটর করুন

gnome-power-statistics চালু করুন। এতে আপনি মেশিন বুটআপ হওয়া থেকে শুরু করে এখন পর্যন্ত আপনার পিসির পাওয়ার ইউজেস সম্পর্কে জানতে পারবেন ( যদি আপনার হার্ডওয়্যার এটা সমর্থন করে )। এবার একটা প্রোগ্রাম চালিয়ে দেখুন এটা কেমন পাওয়ার ইউজ করে।

কার্সর ব্লিংকিং থামিয়ে দিন

অনেকের কাছেই কার্সর ব্লিংকিং একটি বিরক্তিকর বিষয়। এটা থামানোর জন্য gconf-editor ওপেন করুন এবং desktop>gnome>interface এ যান। এবার cursor_blink থেকে টিক চিহ্ণটা উঠিয়ে দিন। এখন শুধু মাত্র ইভোলুশন ছাড়া আর সবাই ব্লিংকিং এড়িয়ে চলবে।

আপনার উবুন্টুর বুটচার্ট দেখুন

আপনার সিস্টেমের বুটচার্ট দেখতে হলে প্রথমে bootchart প্যাকেজটি ইন্সটল করুন। এবার /var/log/bootchart/directory তে যান। আপনি যদি কমান্ড লাইন ইউজ করতে চান তবে ডিরেক্টরীর আগে eog লিংতে হবে। আর যদি নটিলাস ইউজ করতে চান তবে ডাবল ক্লিক করলেই হবে। আরেকটা কথা, এটা সিস্টেমের উপর প্রচন্ড প্রভাব ফেলে। তাই ব্যবহার করার পর রিমুভ করে ফেলাই ভাল।

কমান্ড লাইনের মাধ্যমে ইমেজ রিসাইজ করুন

টার্মিনাল থেকে ইমেজ রিসাইজ করতে হলে আপনার পিসিতে Image Magic ইন্সটল করা থাকতে হবে। এজন্য সিনাপটিক থেকে imagemagick নামের প্যাকেজটি ইন্সটল করে ফেলুন। এবার টার্মিনাল ওপেন করে কমান্ড দিন এভাবেঃ

convert -resize 50% filename.bmp filename_small.bmp

এরফলে filename.bmp ফাইলটি ৫০% সংকুচিত হবে। বড় করতে হলে কমান্ড হবে এরকমঃ

convert -resize 200% filename.bmp filename_large.bmp

এতে ফাইলটি ২০০% সম্প্রসারিত হবে। ব্যাস কাজ শেষ।

ছবির বিস্তারিত তথ্য দেখুন টার্মিনাল থেকেই

আপনি যদি টার্মিনাল কোন ছবির বিস্তারিত দেখতে চান তবে সিনাপটিক থেকে exif ইন্সটল করুন। এখন টার্মিনাল ওপেন করে তাতে লিখুন exif photo.jpg যেখানে photo.jpg হচ্ছে কাংক্ষিত ছবির নাম। এবার এন্টার চাপুন। আপনি এই ছবির প্রয়োজনীয় অপ্রয়োজনীয় সমস্ত তথ্যই পেয়ে যাবেন।

আশা করছি পরের পর্ব নিয়ে খুব শিঘ্রই আসবো। ভালো থাকুন সে পর্যন্ত। ধন্যবাদ সবাইকে।

comments

11 কমেন্টস

  1. অসংখ্য ধন্যবাদ শেয়ার করার জন্য । চালিয়ে যান । কাজে লাগবে ।

  2. উবুন্টু ব্যবহার করতে পারলে তো সহজ কিন্তু যদি কেউ এটাকে কঠিন মনে করে কবে কঠিনই বটে।

  3. কিছু বুঝলাম না। হ্যাকিং বিজ্ঞান প্রযুক্তির নীতিমালার বিরুদ্ধে!

    নীতিমালাঃ
    বিজ্ঞান প্রযুক্তি ডট কম নৈতিকতায় বিশ্বাসী। তাই হ্যাকিং বা ক্র্যকিং বিষয়ক কোন লেখা জমা দেয়া যাবে না।

    আর এখন দেখছি ❗ ❗ ❗ ❗

    • স্ট্রিক্টলি বললে বিপ্র ক্র্যাকিংয়ের বিরুদ্ধে। আমরা আসলে হ্যাকিং এবং ক্র্যাকিং দুইটা জিনিস নিয়ে আউলাইয়া ফালাই। এজন্যই আমাদের মাঝে সমস্যাটা বাঝে। এই দুটোকে আলাদা করতে পারলেই আর কোন সমস্যা হতো না।

  4. ভাই আমাদের উবুন্টু টিপস এন্ড হ্যাকস – পর্ব ২ কোথায়???আমরা তো অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছি। 🙂

  5. assalamuwalaikum,

    Vai Ubuntu/Kubuntu ki vabe windows er shathe chalano jai sheitar upor akta post likhle khub upokrito hotam

  6. Fashion can be incredibly intimidating, especially if you don’t know how to get started. There’s so much you can learn but you just need to go in the right direction. Think about the good ideas in the following article to help improve your fashion life.
    Lunette Oakley

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.