উবুন্টু নিয়ে ধারাবাহিক পোস্টের দ্বিতীয় পর্বে সবাইকে স্বাগতম। উবুন্টু নিয়ে বিভিন্ন টিপস এন্ড ট্রিকস নিয়েই এই পোস্ট। কম্পিউটার ব্যবহার শুরু করার পর থেকেই উবুন্টু ব্যবহার করছি। আর নিজের অভিজ্ঞতা থেকেই টিপসগুলো শেয়ার করছি। এর আগে প্রথম পর্ব দিয়েছিলাম, আজকে দ্বিতীয় পর্ব।

যারা প্রথম পর্ব পড়েননি তারা এখান থেকে পড়ে নিতে পারেনঃ http://www.bigganprojukti.com/post-id/10348/ তো শুরু করা যাক দ্বিতীয় পর্ব।

খুব দ্রুত কিছু সার্চ করুন

আপনি উবুন্টুতে খুবই দ্রুত কোন কিছু সার্চ করতে পারবেন। শুধুমাত্র যে উইন্ডোতে সার্চ করতে চান সে উইন্ডোটা ওপেন থাকা অবস্থায় আপনি কিছু লিখলেই দেখবেন নিচের ডান কোনার দিকে একটা বক্সএ ঐ লেখাগুলো দেখাচ্ছে। তখন আপনি খুব সহজেই ওই টেক্সট সম্পর্কিত যে কোন কিছু খুজে বের করতে পারবেন। এটা বেশিরভাগ এপ্লিকেশনের সাথেই কাজ করে। এছাড়াও আপনি সার্চ করার আগে / (স্ল্যাশ) চাপ দিতে পারেন। এটাও কিছু কিছু এপ্লিকেশনে এমনকি হোল টার্মিনালেও সার্চ অপশন চালু করে। আরেকরটা কীবোর্ড শর্টকাট হচ্ছে Ctrl+F এটা দিয়েও প্রায় সব এপ্লিকেশনেই ফিল্টার চালু করা যায়।

সক্রিয় করে নিন আপনার ওয়েবক্যাম

ওয়েবক্যাম কিনেছেন, কিন্তু সেটার ড্রাইভার সিডিতে লিনাক্সের উপযোগী কোন ড্রাইভার দেয়নি? কোহি বাত নেহি। সিনাপটিক থেকে Cheese প্যাকেজটি ইন্সটল করে নিন। এবার আপনি এটা রান করালেই ছবি তুলতে পারবেন এবং ভিডিও রেকর্ড করতে পারবেন। এটা খুবই সহজ একটা এপ্লিকেশন। যে কোন নিউবিও একবার দেখলেই সবকিছু খুব সহজেই বুঝতে পারবেন।

আর যদি বলেন যে নাহ আমি কিছু ইন্সটল করতে পারবো না! তাইলে কি উপায়, তাইলে কি করা যায়!? জী, তাইলেও উপায় আছে। আপনার প্রিয় ভিডিও প্লেয়ারটি ওপেন করে ফেলুন। এবার এটার অপশন থেকে রেকর্ড করুন ওয়েবক্যামের ভিডিও। আমি নিজেও প্রথমদিন চীজীর নাম মনে করতে না পেরে ভিএলসি দিয়ে ওয়েবক্যাম চালিয়েছিলাম। 🙂 তবে যাই বলেন ফাইন টিউনিংএর জন্য আমার কাছে চীজীই বেটার মনে হয়। অপাসিটি, লাইট এসব পরিবর্তনের জন্য এটাই ভাল। (আমি আবার এসব হাবিজাবি কিছুই বুঝি না। )

রার এক্সটেনশনের ফাইল নিয়ে কাজ করা

উবুন্টুতে জিপ ফাইলের সাপোর্ট থাকলেও প্রোপাইটরী ফাইল ফরম্যাট হওয়ায় রার এক্সটেনশনের সাপোর্ট ডিফল্টভাবে দেয়া থাকে না। এজন্য সফটওয়্যার সেন্টার থেকে unrar বা p7zip-full এই দুটোর যে কোন একটা প্যাকেজ ইন্সটল করে নিন। এবার ফাইল রোলার দিয়েই রার ফাইল সংক্রান্ত যে কোন কাজ করতে পারবেন। আলাদা কোন ইন্টারফেসেরও দরকার নেই।

ভার্চুয়াল কনসোল এ নিজের পছন্দমত নোটিফিকেশন দিন অথবা নোটিফিকেশন বন্ধ করুন

আপনি যদি Alt+F2 চেপে ভার্চুয়াল কনসোল ওপেন করেন তবে এখানে লেখা আসে উবুন্টু একটি ফ্রী প্রোজেক্ট। এটা কিছুটা হাস্যকর আবরা কিছুটা বিরক্তিকরও বটে। কারণ এটা কেউ ভুলে পারে না, সেখানে বারে বারে এই লেখা দেখানোর কোন মানে হয় না। আপনি যদি এটা বন্ধ করতে চান তবে টার্মিনাল ওপেন করে নিচের কমান্ড দিনঃ

sudo rm/etc/motd

পাসওয়ার্ড চাইলে পাস দিন। এবার এটা রান করুনঃ

sudo touch /etc/motd

ব্যাস হয়ে গেল। এখন থেকে আর এটা দেখাবে না। আপনি চাইলে অবশ্য motd ফাইলটা এডিট করে নিজের পছন্দমত কোন মেসেজ দেখাতে পারেন। এজন্য রুটমুডে ফাইল ম্যানেজার ওপেন করে যে কোন টেক্সট এডিটর দিয়ে ফাইলটা এডিট করুন আর নাহলে নিচের কমান্ড দিনঃ

sudo gedit /etc/motd

এবার ফাইলটা সেভ করে বেরিয়ে আসুন। তাহলেই খেল খতম।

কথা বলবে এবার আপনার উবুন্টুঃ

উইন্ডোজে লেখা পড়ে শোনানোর জন্য বেশ কিছু টুলস পাওয়া যায়। নেট থেকে ডাউনলোড করে ইন্সটল করে নিলেই হল। একই কাজের জন্য উবুন্টুতে espeak নামে একটা টুলস কিন্তু ডিফল্টভাবেই দেয়া থাকে। টার্মিনাল থেকে এটা অপারেট করতে হয়। যেমন টার্মিনালে নিচের কমান্ডটা দিনঃ

espeak “I love Bangladesh”

এন্টার বাটন চাপলে উবুন্টু এটি আপনাকে পড়ে শোনাবে। পড়া বন্ধ করতে চাইলে Ctrl+D চাপতে হবে।

আপনি চাইলে একে গ্রাফিকালিও অপারেট করতে পারবেন। এটি মূলত Orca Screen Reader এর সাথে যৌথভাবে কাজ করে। গ্রাফিকাল ভাবে অপারেট করতে চাইলে Orca Screen Reader প্রোগ্রামটি চালু করে নিন। এজন্য টাইটেলবার থেকে System>Preferences>Assistive Technologis এ ক্লিক করুন। এটি ওপেন হলে যে উইন্ডো দেখা যাবে সেখান থেকে Enable assistive technologis এর পাশে টিক দিয়ে একে এনাবল করুন। এবার একবার লগআউট করে আবার লগইন করতে হবে। এজন্য মাউস দিয়ে লগ আউট করুন বা কীবোর্ড থেকে Ctrl + Alt + BackSpace চেপে ধরুন। নতুন লগইনের পর System > Preferences >Prefered Applications ওপেন করুন। এবার Accessibility ট্যাব থেকে Run at start under the Visual heading এর পাশে টিক চিহ্ণ বসিয়ে দিন। এবার আরও একবার লগআউট করে লগইন করতে হবে।

টার্মিনাল থাকে চালানোর সময়  আপনি চাইলে ডিফল্ট ভয়েস পরিবর্তন করে শুনতে পারবেন। যেমন নিচের কমান্ডটি টার্মিনালে রান করলে জ্যামাইকান একসেন্টে ইংরেজী উচ্চারণ করা হবে।

espeak -s 140 -v en-westindies “Want to know about open source?”

এখানে –v অপারেট ব্যবহার করা হয়েছে একসেন্ট পরিবর্তন করার জন্য। কি কি একসেন্টের জন্য এটি ব্যবহার করা যাবে তা জানতে নিচের কমান্ডটি ব্যবহার করুন।

espaek -voices=en

আগের কমান্ডটিতে -s নামে আরেকটা অপারেটর ব্যবহার করা হয়েছে। প্রতি মিনিটে কতগুলো শব্দ পড়ে শোনানো হবে তা নির্দিষ্ট করে দেয়া যায় এই অপারেটরের মাধ্যমে। ডিফল্টভাবে প্রতি মিনিটে ১৭০ শব্দ পড়ে শোনানো হয়। অনেক বড় কোন ডকুমেন্ট পড়ে শোনানোর সময় এত দ্রুত পড়লে বুঝতে অসুবিধা হতে পারে। সে ক্ষেত্রে এর মান কমিয়ে রাখা যায়।

কারও যদি কোনটা বুঝতে সমস্যা হয় তাহলে কমেন্টের মাধ্যমে সেটা জানাবেন। আমি চেষ্টা করব পরের পর্বে সমস্যাটার একটা সমাধান দেয়ার জন্য।

ভাল থাকুন। ধন্যবাদ।

comments

4 কমেন্টস

  1. আচ্ছা,আমার উবুন্টু ইন্সটলের পর মউসের right click কাজ করে না।কি করা যায়?

  2. আসাধারন। আমি ব্যবহার করি না । কারন কখুব ভয় হয় 1.5GB এর 650MB লাগবে ডাউনলোডে ।তারপর ডাউনলোডের পর যদি ঠিকমত ব্যবহার করতে না পারি তা হলে তো ধরা খাব:lol:

  3. অসংখ্য ধন্যবাদ শেয়ার করার জন্য । চালিয়ে যান । 😆

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.