মাইক্রোসফটের ডেভেলপ করা উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেম (ওএস) এর সর্বশেষ ভার্শন হলো উইন্ডোজ ১০। এটি এমনভাবে বানানো হয়েছে যে, ডেস্কটপ, ল্যাপটপ, স্মার্টফোন, ট্যাবলেট, এক্সবক্স ওয়ান কনসোলসহ অন্যান্য ডিভাইসেও ওএসটি ব্যবহার করা যায়। বর্তমানে সারাবিশ্বে প্রায় ৩০ কোটি ডিভাইসে চলছে এই অপারেটিং সিস্টেম। গত সপ্তাহে মাইক্রোসফটের পক্ষ থেকে এক আনুষ্ঠানিক ঘোষণায় এ তথ্য জানানো হয়।

বিশাল সংখ্যক ব্যবহারকারী পেয়ে মাইক্রোসফট বেশ সন্তুস্ট। দেখা যায়, বাসাবাড়ি থেকে শুরু করে স্কুল, ক্ষুদ্র ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, বড় কোম্পানি এবং অন্যান্য সংস্থা খুব দ্রুত সময়ে উইন্ডোজ ১০-এ আপগ্রেড হয়েছে; যার ধারাবাহিকতা এখনো অব্যাহত রয়েছে। এর আগে উইন্ডোজের কোনো সংস্করণই এত দ্রুত এত বেশি সংখ্যক গ্রাহকের কাছে পৌঁছতে পারেনি।

উইন্ডোজ ১০ উন্মোচনের পর পরই পুরাতন উইন্ডোজ ৮ অথবা উইন্ডোজ ৮.১ গ্রাহকদের বিনামূল্যে হালনাগাদ সুবিধা চালু করেছিল। ফলে খুব অল্প সময়ের মধ্যেই উল্লেখযোগ্য সংখ্যক গ্রাহকের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছাতে পারে ওএসটি। যদিও আর বেশি দিন বিনামূল্যে উইন্ডোজ ১০-এ আপগ্রেডের সুবিধা থাকছে না। সংশ্লিষ্টদের বিবৃতি অনুযায়ী, আগামী ২৯ জুলাই থেকে এর বিনামূল্যে আপগ্রেডিং সুবিধা বন্ধ করে দেয়া হবে। এর পর থেকে সফটওয়ারটির জন্য গুনতে হবে ১১৯ ডলার।

বৈশ্বিকভাবে শতকোটি ডিভাইসে উইন্ডোজ ১০ পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্য বাস্তবায়নে কাজ করছে মাইক্রোসফট। অবশ্য বিনামূল্যে আপগ্রেড সুবিধা বন্ধ করা হলে গ্রাহক বৃদ্ধির ধারাবাহিকতা কতটুকু অব্যাহত থাকে, সেটাই এখন দেখার বিষয়।

comments

কোন কমেন্ট নেই

LEAVE A REPLY

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.