বিশ্বের অন্যান্য দেশের সাথে তাল মিলিয়ে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সফটওয়্যার ডিপার্টমেন্ট এবং পজিটিভ টেকনোলজি’র যৌথ উদ্যোগে  ১৭ ও ১৮ই মে এই দুইদিন ব্যাপী প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে পালিত হচ্ছে ইন্টারন্যাশনাল পজিটিভ হ্যাক ডে’স। এই আয়োজন চলছে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি’র ধানমন্ডিস্থ ক্যাম্পাসে। ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির পাশাপাশি অন্যান্য দেশের ১৪ টি আন্তরজাতিক বিশ্ববিদ্যালয় অংশগ্রহণ করেছে।

ইন্টারন্যাশনাল পজিটিভ হ্যাক ডে’স একটি আন্তর্জাতিক আয়োজন যেখানে বাস্তবিক তথ্য নিরাপত্তা নিয়ে কাজ করা হয়। এটি দুই দিন ব্যাপী একটি আয়োজন এবং রাশিয়ার মস্কো হতে পজিটিভ হ্যাক ডে’স নামক আন্তর্জাতিক ফোরাম কর্তৃক ব্যবস্থাপনাকৃত হয়ে থাকে। আন্তর্জাতিক এই আয়োজনটি শুরু হয় মুক্ত বক্তৃতার মাধ্যমে যা লাইভ স্ট্রিমিংয়ের মাধ্যমে সারা বিশ্বের আয়োজনে অংশগ্রহণকারীরা অবলোকন করে থাকেন। পরবর্তীতে অনুষ্ঠিত হয় এথিক্যাল হ্যাকিং শীর্ষক ছোট্ট একটি কর্মশালা এবং তারপরপরই থাকে সরাসরি প্রশ্নোত্তর পর্ব, মন্তব্য। মূল অংশে থাকে বাস্তবিক তথ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করার প্রতিযোগীতা। নির্দিষ্ট নিয়ম মেনে প্রতিযোগীরা দুইটি দলে বিভক্ত হয়ে প্রতিযোগীতায় অংশ নিয়ে থাকেন। একটি দল তথ্যের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে এবং অপর দল ঐ নিরাপত্তা বিঘ্নিত করতে সচেষ্ট হন। দুই দিন ব্যাপী এই প্রতিযোগীতার অভিজ্ঞ বিচারক মন্ডলী প্রতিযোগীদের এসকল কর্মকান্ডে প্রতিযোগীতার নীতিমালা মেনে চলার বিষয়টা নিশ্চিত করে থাকেন। ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩০জন শিক্ষার্থী এবারের এই আয়োজনে বাস্তব জীবনের তথ্য নিরাপত্তার বিভিন্ন ফাঁক-ফোকড়গুলো খুঁজে বের করার বিষয়ে কাজ করছে। দুই দিনব্যাপী আয়োজনের শেষ ও দ্বিতীয় দিনে লাইভ স্ট্রিমিং সেশন থাকবে। বিশ্বের নানান অবস্থান থেকে খ্যাতনামা হ্যাকার ও তথ্য নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞরা এই আয়োজনে যোগ দেবেন। সহযোগীতা এবং সুস্থ প্রতিযোগীতার মাধ্যমে তথ্য নিরাপত্তার নানান বিষয়ে এই আয়োজন থেকে নানান সমাধান বেরিয়ে আসবে। দুই দিনের কাজ শেষে বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদানের জন্য অংশগ্রহণকারীদেরকে বিভিন্ন পুরষ্কার দেয়া হবে। তথ্যপ্রযুক্তি ও জ্ঞানার্জনের মানকে উন্নত করতে এই আয়োজন নিয়মিত হওয়া উচিত বলে আয়োজকরা বলছেন।

 

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.