প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের একসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রোগ্রাম ডিজিটাল বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে নানা উদ্ভাবনী পদ্ধতি ও উপকরণ ব্যবহার করে ইংরেজী ভাষা শিক্ষায় দক্ষ জনশক্তি তৈরির লক্ষ্যে ১০ নভেম্বর বৃহস্পতিবার বিকাল ৩ টায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসএসএফ ব্রিফিং রুমে একসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রোগ্রাম এবং ব্রিটিশকাউন্সিল এর মধ্যে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মহাপরিচালক (প্রশাসন) ও এটুআই প্রোগ্রামের প্রকল্প পরিচালক কবির বিন আনোয়ার এবং বৃটিশ কাউন্সিল বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর মিস বারবারা উইকহাম নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করেন।

রূপকল্প ২০২১ বাস্তবায়নের পাশাপাশি দক্ষ ও কর্মক্ষম জনগোষ্ঠী গঠনে বর্তমান সরকারের অব্যাহত কার্যক্রমের অংশ হিসেবে শিক্ষার্থী, শিক্ষক, উদ্যোক্তা এবং অন্যান্য দায়িত্বশীল পক্ষের মাঝে ইংরেজি শিক্ষার প্রসার এবং গঠনমূলক মানোন্নয়ন করার লক্ষ্যে এটুআই ও বৃটিশ কাউন্সিল বাংলাদেশ একসাথে কাজ করবে। এই সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের মাধ্যমে মানসম্মত ইংরেজী প্রশিক্ষণ এবং শিখনে বৃটিশ কাউন্সিলের দেশীয় এবং আন্তর্জাতিক সেবা এবং উপকরণসমূহ ব্যবহার করা যাবে।মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম এবং অনলাইন পোর্টাল এর মাধ্যমে অনলাইন শিক্ষার প্রসারে যৌথভাবে কাজ করবে। এছাড়া শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের মান উন্নয়নের লক্ষ্যে বিভিন্ন ধরনের উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে। শিক্ষাবিষয়ক বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সেমিনার, কর্মশালা, সম্মেলন এবং নানাবিধ অনুষ্ঠানের আয়োজন এবং অংশগ্রহণে ব্রিটিশ কাউন্সিল সহায়তা করবে। এটুআই এর ডিজিটাল সেন্টারের মাধ্যমে যুক্তরাজ্যের আই ই এল টি এসপরীক্ষার মত নানা শিক্ষামূলক এবং পেশাদার ডিগ্রির বিষয়ে ব্রিটিশ কাউন্সিলের সহায়তার ক্ষেত্র বৃদ্ধি পাবে।

সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে একসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রোগ্রামেরজনপ্রেক্ষিত বিশেষজ্ঞ নাঈমুজ্জামান মুক্তা, ই-লার্নিং স্পেশালিস্ট প্রফেসর ফারুক আহমেদ, ব্রিটিশ কাউন্সিলেরপরিচালক (পরীক্ষা) দীপ অধিকারী, ইংরেজী বিভাগের প্রধান গায়নর ইভান্স, সহকারি পরিচালক (প্রোগ্রাম), প্রজেক্ট ম্যানেজার মাসুদা খাতুন এবং উভয় প্রতিষ্ঠানের ঊর্দ্ধতন কর্মকর্তাগণ ও বিভিন্ন গণ মাধ্যম কর্মী উপস্থিত ছিলেন।

 

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.