অনলাইনে আয়, অফলাইনে আয়, বেডরুমে বসে আয়, বাথরুমে বসে আয়, চারিদিকে শুধু আয় আর আয়। নেটের বাংলা টেক ব্লগগুলোতে ঢুকলে মনে হয় বাঙালি ধুমছে আয় করে একেকজন চার-পাঁচটা করে আইফোন-ম্যাকবুক কিনে বড়লোক হয়ে যাচ্ছে। কিন্তু বাস্তবতা ভিন্ন। ইন্টারনেটে আয়ের জন্য বিশেষ করে বাঙালিরা যে পরিমান কষ্ট করেন, তার বিনিময়ে খুবই নগণ্য আয় করতে পারেন। তবে আরো দুঃখের বিষয় হলো, যারা এই নগণ্য পরিমাণ আয় করতে জানেন, তারাও সংখ্যায় অতি নগণ্য। সবমিলিয়ে বাস্তবতা হলো, যত বেশি আয়ের কথা চারিদিকে শোনা যাচ্ছে, ততোটা আয় আসলে হচ্ছে না। বাঙালি আজও গ্রামীণফোনের ১ গিগাবাইটের প্যাকেজের ইন্টারনেট ব্যবহার করে। আজও ফ্রি হোস্টিং-এ ওয়েবসাইট হোস্ট করে। কিন্তু যারা অনলাইনে আয়ের চেষ্টায় ব্যর্থ, তারা কি কখনো ভেবে দেখেছেন? কেন এই ব্যর্থতা?

বাঙালির বর্তমান ট্রেন্ড হচ্ছে অ্যাডফ্লাই। হঠাৎ করেই সব ব্লগে ছবি, ম্যাগাজিন, গেম ইত্যাদি ডাউনলোড লিংকের হিড়িক পড়ে গেছে। কিন্তু লিংকে ক্লিক করতে গেলেই আসল কারণ বোঝা যায়। সবাই যে লিংকের আড়ালে বিজ্ঞাপন ঢেকে রেখেছে। ১০০০ ক্লিকে মাত্র কতো ডলার যেন। এর বিনিময়ে মানুষ যেভাবে কষ্ট করছেন, কেউ কেউ আলাদা ব্লগও খুলে ফেলেছেন, কিন্তু দেখলে হাসি আসে যে তাদের এই ধৈর্য্য কতদিন থাকবে?

আসলে বেশিদিন থাকবে না। অন্তত পিটিসি, লিংক অ্যাড এসব দিয়ে হয়তো আয় করা যায় কিন্তু তা কখনোই আপনি যতোটা খাটছেন তার অর্ধেকের জন্যও যথোপযুক্ত নয়। আমাদের বাঙালির মহা সমস্যা হলো আমরা এক লাফে গাছের মগডালে উঠার জন্য ব্যস্ত হয়ে পড়ি। আমি যে ব্যতিক্রম, তা কিন্ত বলছি না। মাঝে মাঝে আমিও লাফ দেয়ার জন্য তৈরি হই। কিন্তু শেষে কী হবে তা ভেবে নিজেকে সামলে নিই। তবে অনেকেই তা পারেন না।

আপনি যদি সত্যিই আয় করতে চান এবং তা যদি কম্পিউটার, ওয়েবসাইট ইত্যাদির উপরে হতে হয় তাহলে আপনার প্রথমেই যা প্রয়োজন তা হলো শিক্ষা।

বেছে নিন আপনার পছন্দ

শিক্ষা গ্রহণের আগে আপনাকে বুঝতে হবে আপনার আগ্রহ কোথায়। অনেকেই বলবেন ফ্রিল্যান্সিং। কিন্তু ফ্রিল্যান্সিং কোনো কাজ না। এটা কাজের একটা উপায় মাত্র। তাহলে আপনার পছন্দের কাজ কোনটি? গ্রাফিক্স ডিজাইন? ওয়েব ডিজাইন? অ্যাপ্লিকেশন ডেভেলপমেন্ট? জাভা ডেভেলপমেন্ট? আইফোন অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট? ওয়েবসাইট ডেভেলপমেন্ট? সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট? ফ্ল্যাশ ডেভেলপমেন্ট? থ্রিডি এনিমেশন ডেভেলপমেন্ট? ভিডিও এডিটিং? নাকি অডিও মিক্সিং?

এগুলোর বাইরেও আরো অনেক কাজ রয়েছে যা আপনি একটু খোঁজ করলেই জানতে পারবেন। অতএব, টাকার দিকে হাত বাড়ানোর আগে জেনে নিন আপনার কোন কাজটি শেখা দরকার।

শিখে নিন আপনার কাজ

আপনি যেই কাজই শিখতে চান না কেন, আপনার জন্য রয়েছে প্রচুর অপশন। বাংলাদেশেই অনেক ট্রেনিং সেন্টার রয়েছে যারা কোনো না কোনোটার উপরে বেশ ভালো শেখায়। যেমন আমি শুনেছি বিডিজবস পিএইচপি খুব ভালো শেখায়। এভাবে আপনি যা শিখতে চান তা কোথায় ভালো শেখা যাবে তা খোঁজ নিন। কিছুটা টাকা হয়তো খরচ হবে, কিন্তু এতে করে মনে করুন গাছে উঠার জন্য আপনি ক্রেন তৈরি করছেন।

অন্যদিকে ইংরেজিতে ভালো জ্ঞান থাকলে আর ইন্টারনেট স্পিড ভালো থাকলে টরেন্ট দিয়ে ডাউনলোড করতে পারেন লিন্ডা বা টোটাল ট্রেনিং-এর যে কোনো সফটওয়্যার এর উপর সম্পূর্ণ ট্রেনিং ভিডিও। এছাড়াও বিভিন্ন সাইটেও এসব শিখতে পারবেন। আর শেখার কাজ শুরুর সময় অবশ্যই আপনি যা শিখতে চাচ্ছেন তার উপর ভালো একটি ফোরাম খুঁজে বের করুন। সেখানে আপনার ছোটখাটো প্রশ্ন করে অন্যদের কাছ থেকে জেনে নিতে পারবেন উত্তর। মনে রাখবেন, বহিঃর্বিশ্বের মানুষ যথেষ্টই হেল্পফুল। বিশেষ করে এসব ফোরামে আপনি সাহায্য পাবেন তা নিশ্চিত থাকতে পারেন। কেবল প্রয়োজন হবে সঠিক ফোরামের এবং ইংরেজিতে অল্প দক্ষতা।

এবারে আয় করুন দু’হাতে

শুরুটা কখনোই অনেক ভালো হয় না। তাই মনের জোর নিয়ে কাজের সন্ধানে নেমে পড়ুন। প্রথমে ব্যক্তিগতভাবে ক্লায়েন্ট খুঁজুন। দু-একটি কাজ করে তারপর দেশীয় কোনো কোম্পানিতে জয়েন করতে পারেন। বাংলাদেশে অনেক ভালো ভালো ফার্ম আছে। খোঁজ নিলেই জানতে পারবেন। এসব জায়গায় কাজ করলে আপনার টাকার পাশাপাশি ক্যারিয়ারও তৈরি হবে। আর যদি এরই মধ্যে ওডেস্ক বা ইল্যান্সে ভালো অবস্থানে পৌঁছে যেতে পারেন, তখন আপনিই ডিসিশন নিতে পারবেন দেশীয় কাজটা ধরে রাখবেন নাকি ফ্রিল্যান্সিং-এ ডেডিকেটেডভাবে কাজ করবেন।

তবে সবক্ষেত্রেই আপনাকে শিখতে হবে খুব ভালোভাবে। আপনার পছন্দের বিষয় হলে শিখতে কোনো অসুবিধা হবে না। এভাবেই আপনি নিশ্চিত উপায়ে সত্যিকারের টাকা আয় করতে পারবেন আপনার পছন্দের কাজ করেই।

comments

34 কমেন্টস

    • :lol:ভাই যাই বলেন আমি একটা ভালোই কাম পাইছি। ২ মাসে ১৮ ডলার কামাইছি। ভালোই তো লাগতাছে। যদি কেউ করতে চান তাইলে আমার লগে যোগ দিতে পারেন এই লিন্ক এ । ভালা লাগলে কইরেন, নাইলে না করেন, আপনের ইচ্ছা।:lol:

  1. এতদিন পর একটা জবর পোষ্ট পাওয়া গেলো। এইটা পড়ে যদি সবার আক্কেল না হয় তাহলে আর কোন ভাবেই হবে না। ধন্যবাদ “আমিনুল ইসলাম” ভাই আপনার গুরুত্ব পূর্ন লেখাটি আমাদের সাথে শেয়ার করার জন্যে। সাথে অসাধারন রেটিং এবং পছন্দের তালিকাতে যুক্ত করলাম।


    অফটপিকঃ আমার পছন্দের তালিকায় এটাই প্রথম পোষ্ট 😆

    • বাংলাদেশে তো তেমন ঘোড়া নেই। তাই বোধহয় সবাই অনলাইনে আয়ের পেছনে ছোটে। 😉

  2. আমিও প্রথম দিকে ঠিক এমনটাই মনে করেছিলাম। টাকা আসুক আর না আসুক কিছু শিখতে পারব। ভালো করে না জানলে কোন কাজ ঠিক মতো করা যায় না। আগে শিখে নেয়া উচিৎ…
    nice পোষ্ট।
    ধন্যপ্লাস

    • প্রফেশনালি স্কিলড এবং লার্নড ব্যক্তিদের ফ্রিল্যান্সিং-এর মার্কেটপ্লেসেও অনেক চাহিদা রয়েছে।

    • বহুদিন পর মন্তব্য করলেন। কী খবর?

      • হেহ হেহ হেহ
        নাহ আসলে টাইমিং খারাপ যাচ্ছে 😛
        যাইহোক আপনিতো এক লাফে ৬০+ 😆
        দাড়ান ৫০ টা করে নিই
        আফটার অল নার্ভাস টাইম 😉

  3. অাসলেই পোষ্টটা অনেক কাজের। ধন্যবাদ।

  4. আমিনুল লেখাটা অনেক ভালো হয়েছে। আসলেই আমরা কাজ শেখার আগেই টাকার মানে আয়ের পিছনে ছুটি আর তাই তো আমাদের এই অবস্থা।
    ধন্যবাদ সুন্দর উপস্থাপনের জন্য

  5. আচ্ছা ptc সাইট গুলু রিয়াল নাকি?
    BUX TO নামে একটা PTC সাইট আছা। এটা রিয়াল নাকি? একটু দয়া করে জানাবেন।

  6. ভাই জটিল টিউন হইছে।কিছু ফোরামের ঠিকানা দিলে ভাল হত।আর কিছু ফার্মের কথা বলেছেন সেখানে কিভাবে জয়েন করব।জানালে খুশি হব

  7. দারুন লিখেছেন, ধন্যবাদ শেয়ার করার জন্য। বাঙালী সফল হতে পারে না তার প্রধান কারন আমি মনে করি ধৈর্য্য এবং শেখার আগ্রহ।
    অফটপিক: আমি যেহেতু ওডেস্ক প্লাটফর্ম নিয়ে লিখতেছি সেহেতু অনেক ক্লায়েন্টের ফোন আসে। তাদের কথার সারমর্ম এই বুঝলাম তারা ভেবেছে ওডেস্কে এ্যাকাউন্ট খুললেই কাজ পাওয়া যায়, তাদের মাথায় এইটুকু ঢোকে নাই যে ওডেস্ক হলো কাজ পাওয়ার একটা মাধ্যম মাত্র।

  8. হ্যাঁ গুরুত্ব দিলে অনেক কিছু পাওয়া যাবে

  9. অনেক কাজের পোস্ট।উপকার হবে অনেক ।খুব ভালো লাগলো। ধন্যবাদ:-D

  10. ভাই আমি অনেক চেষ্টা করেছি। কিন্তু কি ভাবে অনলাইনে ইনকাম করা যায় তা এখনো পাইনি। দয়া করে পরামর্শ দিলে উপক্রিত হব। ধন্যবাদ।

  11. এখনই সচেতন হোন এবং সচেতন করুন!

    আপনার ও আপনার পরিবারের অথবা প্রিয়জন কে উপহার দেয়ার জন্য এখুনি Medicare Pain Cure Package টি ‘বুক’ করুন।
    Medicare Pain Cure Package only at 1500 TK.

    This package include:

    1.Lumbar roll
    2.Cervical pillow
    3.Medicare health card.

    Call for details – (01795405475)

    আমাদের অনেককেই অফিস বা ব্যাবসা ক্ষেত্রে দীর্ঘক্ষণ চেয়ারে বসে(Computer work & normal work)জব করেন।এ চেয়ারে বসে থাকার দরুন দীর্ঘমেয়াদি সমস্যা হল কোমর ব্যথা ও ঘাড়ে ব্যথা। দীর্ঘক্ষণ চেয়ারে বসে জব করেন,কিন্তু কোমর বা ঘাড়ে ব্যথা হয়নি এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া দুষ্কর।

    টেলিভিশনে সন্ধ্যা থেকেই শুরু হয় ধারাবাহিক নাটক। এ-চ্যানেল ও-চ্যানেল ঘুরে চলতেই থাকে। বাড়ির জ্যেষ্ঠ সদস্যরাও রাত পর্যন্ত বেশ জমিয়ে দেখেন সেগুলো। এভাবে একটানা ঘণ্টার পর ঘণ্টা বসে থেকে থেকে একসময় কোমর ধরে আসে। কিন্তু টেলিভিশনের সামনে থেকে আর ওঠা হয় না। আবার সেই সকালে অফিসে ঢুকে ফাইলে মুখ গুঁজে কিংবা কম্পিউটারের সামনে দীর্ঘক্ষণ বসে থাকতে থাকতেও ব্যথা হয় কোমরে।

    শক্ত সমান বিছানায় এক বালিশে চিত হয়ে ঘুমাবেন।ঘাড় যাতে বালিশ(Cervical Pillow) দিয়ে সাপোর্ট দেয় সে ব্যাপারে খেয়াল রাখবেন। প্রয়োজন মনে করলে বালিশ নিচে টেনে নামিয়ে নেবেন বা কম উচ্চতার বালিশ ব্যাবহার করবেন।ঘাড় সামনে ঝুকিয়ে বেশিক্ষন কাজ করবেন না,কাজের জায়গায় চেয়ার টেবিল এমন ভাবে রাখবেন যাতে ঘাড় সামনে না ঝুকিয়ে কাজ করতে পারেন।মাঝে মাঝে ঘাড়ের ব্যায়াম করে নেবেন।

    কোমর ব্যথা এড়াতে
    *বসার সময় কোমর সুরক্ষিত থাকে, এমনভাবে বসতে হবে।
    *চেয়ারে Lumbar Roll ব্যাবহার করে মেরুদণ্ড কে সোজা রেখে কোমর ব্যথা থেকে রক্ষা পাওয়া যেতে পারে।
    *চেষ্টা করবেন ২-৩ ঘণ্টা বসে কাজ করার পর ১০-১৫ মিনিটের জন্য হালকা হাটাচলা করে নিতে।
    PRICE:
    MEDICARE LUMBAR ROLL-500TK
    MEDICARE CERVICAL PILLOW-1000TK
    For details plz. Visit…………..
    http://dhakacity.olx.com.bd/medi-care-pain-cure-package-iid-668855469

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.