স্কটল্যান্ডের ওর্কনি দ্বীপপুঞ্জে সিলদের সংখ্যা দ্রুত কমে যাচ্ছে। আর এ নিয়ে চলছে নানারকম আলোচনা আর গবেষণা। উত্তর খুঁজতে একটি নতুন কৌশলের কথা ভাবছেন বিজ্ঞানীরা। তারা ব্যবহার করবেন স্মার্টফোন প্রযুক্তি। সামুদ্রিক স্তন্যপায়ী প্রাণী সিলদের শরীরের সঙ্গে যুক্ত করে দেওয়া হবে এই প্রযুক্তি।  স্কটল্যান্ড এবং ইংল্যান্ডের উপকূলে একসময় সিল অনেক বেশি দেখা যেতো। কিন্তু বর্তমানে পরিস্থিতি এতটাই গুরুতর যে স্কটল্যান্ডের উত্তর এবং পূর্ব উপকূলের ৯০ শতাংশ সিল-ই হারিয়ে গেছে। সিল-এর সংখ্যায় এই ভয়াবহ হ্রাসের কারণ হিসেবে এ পর্যন্ত সমুদ্রমুখী বায়ুপ্রবাহ, নৌযানগুলোর টার্বাইন, মানবসৃষ্ট দূষণ, সিলের স্বগোত্রভুক প্রবণতাসহ অনেক কিছুকেই দায়ী করা হলেও এর প্রকৃত কারণ খুঁজে বের করা যায়নি।  সিল কেন হারিয়ে যাচ্ছে এটা জানতে ইউনিভার্সিটি অব সেন্ট অ্যান্ড্রুজের সামুদ্রিক স্তন্যপায়ী প্রাণীদের নিয়ে গবেষণারত ‘সি ম্যামাল রিসার্চ ইউনিট’ আগামী তিন বছর ধরে একটি সমীক্ষা চালাবে ওর্কনি দ্বীপপুঞ্জের সিল মাছেদের উপর। তারই অঙ্গ হিসাবে সিলদের মাথার পেছনে মোবাইল স্মার্টফোন প্রযুক্তি লাগিয়ে দেবেন গবেষকরা। গাড়ি, হার্ট মনিটার বা স্মার্ট মনিটারে যে প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয় সিলদের তথ্য সংগ্রহ করতে সেই একই প্রযুক্তি ব্যবহার করা হবে। সিলের শরীরে কোনও ক্ষতি না করে, মাথার পেছনে যে নরম ফার থাকে, সেখানে স্মার্টফোন প্রযুক্তিতে তৈরি ‘টেলিমেট্র ট্যাগ’গুলি লাগিয়ে দেওয়া হবে। এদের ওজন বেশ হালকা। আর একটি নির্দিষ্ট সময় পরে সিলগুলি যখন তাদের চামড়া খসিয়ে ফেলবে, তখন এই ট্যাগগুলিও তাদের গা থেকে খসে পড়বে বলে অভিমত বিজ্ঞানীদের। ট্যাগ-লাগানো সিলগুলি যখন সমুদ্র থেকে ভেসে উঠবে বা সৈকতে বিশ্রাম নেবে তখন নানা গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পৌঁছে যাবে বিজ্ঞানীদের কাছে। তারা সেই তথ্য সংগ্রহ করবেন।

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.