একদম নতুন ব্লগার এবং কিছু সময় পার করেছেন ব্লগিং এ তারাও মাঝে মাঝে এই প্রশ্নটি করে থাকেন যে, কেন তাদের ব্লগ ধীর গতি সম্পন্ন? কেন অন্যদের (অভিজ্ঞদের) ব্লগ অতি দ্রুত লোড হয়? এটা অত্যান্ত গুরুপ্তপূর্ন প্রশ্ন এবং হাস্যকর কিছু না। হাস্যকর কথাটি বললাম এই কারনে যে, অনেকেই আছেন যারা এই কথাটি শুনে অট্টহাসিতে বসে পড়েন। যেটা নুতন ব্লগারদের বিমুখ করে দেয়।

make-slow-blog-fasterসম্প্রতি আমি কিছু টেকি ব্লগ এ ভ্রমন করেছিলাম, নিতান্তই আমার কিছু প্রয়োজনের কারনেই। সেখানে কয়েকটি ব্লগ লক্ষ করলাম যাদের অবস্থাটা এমন- ১. হেডার এতটাই রং এ ভরপুর যা পাঠকের বিরক্তির কারন। ২. একটি ব্লগে দেখলাম কমপক্ষে ১০টির উপরে বিভিন্ন widgets. ৩. সবচেয়ে উল্লেখ্য যে, তাদের ব্লগে লিখার মান ভাল কিন্তু এই ২/১ টি কারনে তারা তাদের ভিজটরদের স্থায়ীভাবে আটকাতে পাচ্ছেন না। ব্লগারদের লিখার মান এর সাথে তাদের ব্লগ এর আউটলুক এবং লোডিং এর সময়টাও বিবেচ্য। ব্লগ এর মালিকদের ব্লগ লোডিং এর দিকটি তাই অত্যান্ত গুরুপ্তের সাথে বিবেচনা করা দরকার। কারন ভিজিটর আপনার ব্লগের তথ্য পড়তে আসবে তার প্রয়োজনে। তারা পড়তে এসে যদি অপ্রত্যাশিত ভাবে অপেক্ষা করতে হয় তাহলে সে দ্বিতীয় বার আপনার ব্লগে ঘুরেও তাকাবে না। চলুন মূল আলোচনায়…

কি কি কারনে আমাদের ব্লগ গুলো ধীর গতি সম্পন্ন হয় তার কিছু উল্লেখযোগ্য কারন –

ক) ফ্লাশ ফাইল (.swf): ফ্লাশ ফাইল (swf) সাধারনত ভারি হয়ে থাকে এটি আমরা সবাই জানি। তারপরেও আজকাল ফ্লাশ টেমপ্লেট ব্যবহার করে ব্লগ তেরী করার প্রবনতা দেখা যায়। এটা অবশ্য টিনএজারদের ক্ষেত্রে বেশি দেখা যায়। এই কারনেই তাদের ব্লগ লোড হতে সময় নেয়। অভিজ্ঞরা যে এক বারেই করেনা তা না। 😉  হ্যা ব্যবহার করেন আপনার ব্লগের সৌদর্য বৃদ্ধির জন্য তবে তা মাত্রাতিরিক্ত নয় এবং অবশ্যই হোম পেজে না। এখানে একটি প্রশ্ন আসবে অবশ্যই, তাহলে কি আমরা ফ্লাশ ফাইল (swf) ব্যবহার করতে পারবো না? হ্যা, অবশ্যই পারবেন। এটি করতে পারেন, অন্য কোন সার্ভারে আপলোজ করে দিয়ে সেটার লিংক কোড আপনার ব্লগে পেষ্ট করলেন। তাতে এক ঢিলে দুই পাখি মারা হবে 😉 ১. আপনার হোস্টিং এবং ২. ব্রান্ডউইথ দুটোই বেচে যাবে। এছাড়াও ইন্টারনেটে আরো অনেক ফ্রি ফ্লাশ widgets আছে। উদাহরন হিসাবে: Flash Label Widget, Animation Photo, Flash Clock ইত্যাদি। এগুলো সর্ম্পূণ ফ্লাশ এ তৈরী যা কিনা আমাদের ব্লগের গতিকে অনেক মন্থর করে দেয়। 🙁

খ) Java Script ফাইল (.js): আমাদের মধ্যে যারা অভিঞ্জ ব্লগার আছি তারা জানি যে, Java Script ফাইল আমাদের ব্লগে অনেক চিত্তকর্ষক প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করে। সেটা আমাদের নিজের তৈরী করা অথবা ইন্টারনেট থেকে নামানো।  আমরা জানি যে, Java Script ফাইর এর অতিরিক্ত ব্যবহার আমাদের ব্লগ এর গতি কে মন্থর করে। তারপরেও আমরা এটার ব্যবহার করে আমাদের ব্লগকে ধীর গতির করে রাখি। তার ফলাফল হিসাবে আমরা প্রতিনিয়তই আমাদের ব্লগের পাঠক হারাচ্ছি।

গ) Image ফাইল (.jpg/.bmp): অতিরিক্ত Image ফাইল ব্যবহার অথবা মাত্রাতিরিক্ত মাপ এর ইমেজ ব্যবহার আরেকটি মূল কারন ব্লগ এর গতিকে মন্থর করার। সঠিক এবং সাধারন মাপ যেটা নাহলেই নয়, সেই মাপ ব্যবহার করা দরকার। উল্লেখ্য আমি এই প্যারা এর হেডিং এ শুধু মাত্র .jpg/.bmp উল্লেখ্য করেছি তার একটা কারন রয়েছে। .jpg .bmp এ দুটি ফরমেট ছাড়াও তো আরোও ইমেজ ফরমেট আছে। এদুটি উল্লেখ্য যে, আপনি যখন কোন ব্লগ এ এই দুই ফরমেট এর ফাইল রাখবেন লক্ষ করবেন এই ফরমেটের ফাইল আপনরার ব্লগকে কতটা ধীর গতির করে দিবে। এই জন্য অভিঞ্জরা .png/.gif ফরমেটে ইমেজকে ব্লগে রাখেন। লক্ষ করে দেখবেন বিভিন্ন ব্লগ বা ওয়েব সাইটের হেডার এবং লগো গুলো এই দুই ফরমেটের হয়। আরে হ্যা দেখুন না আমাদের বিজ্ঞার ও প্রযুক্তি ব্লগের লগো টি .png ফরমেটে। 😀 তাই ইমেজের সঠিক ফরমেটকে ব্যবহার করা আপনার ব্লগকে দ্রুত গতি সম্পন্ন করবেই।

ঙ) Blog Template নির্বাচন: ব্লগ এর জন্য টেমপ্লেট নির্বাচন করাটাও অত্যান্ত জরুরী কাজ। যেনতেন টেমপ্লেট ইন্সটল করে নিজের ব্লগকে ভারি না করাই ভাল। অনেক টেমপ্লেট আছে যেগুলো বড় বড় ইমেজ পটভূমি-তে(Background)CSS দিয়ে যুক্ত করা থাকে, যা ব্লগ লোডিং এর সময়কে দ্বিগুণ হারে বাড়িয়ে দেয়। যদিও আমরা হেডারে ইমেজ ব্যবহার করি, এগুলোকে compress করে নিয়ে ব্যবহার করলে অনেকাংশে লোডিং টাইম কমবে।

চ) অনেকগুলো Posts হোম পেজে প্রদর্শন করা: হোম পেজে অনেক গুলো পোষ্ট প্রদর্শন করার ফলে ব্লগ লোডিং এর সময় বেড়ে যায়। এ ভুলটা যে শুধু নতুনরা-ই করে তা না, অভিজ্ঞরাও করে থাকে। তবে হ্যা, আপনার ব্যক্তিগত ব্লগ এবং ব্যান্ডউইথ বেশি থাকলে বেশি পোষ্ট প্রদর্শন করাতে পারেন। এক্ষেত্রে ব্যান্ডউইথটাকে মূখ্য বিবেচনা করতে হবে। কারন সবার পক্ষে বেশি ব্যান্ডউইথ কেনার সামর্থ থাকে না। আর কমিউনিটি ব্লগ এর ক্ষেত্রে আলাদা কথা তারা তাদের ইচ্ছামত পোষ্ট প্রদর্শন করাতে পারেন কারন তারা-তো বেশি করে লিখা প্রদর্শনের জন্যই ব্লগ খুলে ব্যান্ডউইথও কিনেছেন বেশি করে। সুতুরাং, কেউ যদি ব্যক্তিগত ব্লগকে কমিউনিটি ব্লগ এর মত সাজাতে ইচ্ছা করেন তাহলে সাবধান, এই কাজ করবেন তো …. !!! সাধারন অবস্থায় আপনি আপনার ব্লগের হোম পেজে ৫-৭ টি পোষ্ট প্রদর্শন করাতে পারেন। আর একটি কথা সবসময় একজন পাঠক হিসাবে আপনার ব্লগকে দেখুন তাহলেই বুঝতে পারবেন আপনার কি করা প্রয়োজন। অন্যখায়, আদার বেপারী হয়ে জাহাজের খবর না করাই ভাল। 😉

এখন দেখুন উপরের কয়েকটি কারন ছাড়াও আরো অনেক কারন আছে যা আপনার ব্লগকে লোড করাতে অনেক সময় নষ্ট করাবে। এগুলো কি কোনভাবেই অতিক্রম করা যাবে না? হ্যা যাবে, এটা আপনাকেই নির্বাচন করতে হবে, আপনাকেই বুঝতে হবে কি করলে আপনার ব্লগ অতি দ্রুত পাঠকের সামনে হাজির হবে এবং পাঠক পড়তে সাচ্ছন্দবোধ করবে। তবে, যেই বিষয়েই নির্বাচন করুন না কেন একটি একটি করে করবেন প্রয়োজন অনুসারে। চূড়ান্ত পর্যায়ে দেখবেন আপনার ব্লগ একন দ্রুত গতিতে লোড হচ্ছে যে কোন প্রকার এর ইন্টারনেট কানেকশনে।

আশা করি আপনার বিষয়গুলো থেকে কিছুটা হলেও উপকৃত হবেন।

সবাই ভাল থাকবেন, সুস্থ থাকবেন। 🙂

comments

25 কমেন্টস

  1. হ্যা.. অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে আলোচনা করেছেন। আমি আমার দেখা যত নতুন ব্লগারদের দেখেছি তারা নিজেরা চায় যেন ওয়েব সাইটটা সুন্দর হয়। কিন্তু তারা ওয়েব সাইটটা সুন্দর করতে গিয়ে এত হাইরেজুলেশন এর থিম দিয়ে ফেলে যে তাদের ওয়েব সাইটে ঢুকতে ১০-১৫ মিনিট লেগে যায় 🙁 । আপনি পোষ্টে অনলাইন রেডিওর কথা বলেন নি। আমি দেখেছি এখন অধিকাংশ নতুন ব্লগারই তাদের ব্লগে রেডিও সংযুক্ত করে বেশি ভারী করে ফেলে। আমার বিশ্বাস আপনার এই পোষ্টা পড়ে নতুন ব্লগাররা কিছু শিক্ষা গ্রহণ করতে পারবে। ধন্যবাদ এরকম একটা পোষ্ট শেয়ার করার জন্য।

    [ অফটপিক: আমার http://www.itworldbd.tk ওয়েবসাইটা কী মানসম্মত? প্লীজ একটু জানাবেন। ]

    • @আব্দুর রহিম ভাই, মন্তব্যের জন্য ধন্যযোগ। 🙂

      আমার পোষ্টের নিচের লিখাটি পড়ুন তাহলে বুঝবেন কেন অনলাইন রেডিওর কথা বলি নাই। আসলে ব্লড ধীর গতির হবার অনেক কারন আছে আমাদের অজানাতেই। আপনাকে বুঝতে হবে আপনি কি করেছেন এবং কেন আপনার ব্লগ ধীর গতিতে লোড হচ্ছে। সবচেয়ে বড় কথা “একজন পাঠক হিসাবে আপনার ব্লগকে দেখুন তাহলেই বুঝতে পারবেন আপনার কি করা প্রয়োজন”।

      আর হ্যা। আপনার ওয়েবসাইটটি দেখলাম। ভাল হয়েছে। তবে লোড হতে সময় নিচ্ছে অনেক।

      • কী বলেন? আমার ওয়েব সাইটে তো কোন রেডিও বা কোন হাইমানের থিম ও নেই। তাহলে সেটি অনেক দেরীতে কেন লোড হচ্ছে? সত্যি অনেক অবাক হলাম.. 😕

        • @আব্দুর রহিম, ভাই আপনার ফেবিকনটার সাইজ হল ১৪ কিলোবাইট, আপনার হেডারের সাইজ ১৫৬ কিলোবাইট, ফেজবুক লাইক বক্সটার সাইজও অনেক বড় আর পোষ্ট এর ইমেজ গুলোর সাইজও বেশ উঁচুমানের তারপর আপনার “Read More” সুবিধা লাগানো আছে, যেটার .JS ফাইল ইমেজ গুলোকে রিসাইজ করতে আরও বেশী সময় নেয়।

      • ঠিক বুঝলাম না কেন। রেডিও বা কোন হাইমানের থিম-ই যে আপনার ব্লগকে লোড হতে দেরী করাবে এমনটা না। হয়তো কোন অভ্যন্তরীন কারনেও হতে পারে। পুনরায় দেখলাম বাট শেম 🙁

  2. স্বাগতম বিপির পোশটিং প্যানেলে,
    আশা করি সাথে থাকবে,
    এবং অনেক হাই প্রৈটন যুক্ত পোশট পাবো
    এবং এক সাথে এগিয়ে যাবে বিপি 🙂

    • তোমাকেও ধৈন্য। 😉

      এসছি যখন সবসময় থাকবো বিপির পোষ্টিং প্যানেলে। আশা করি তোমাদের উৎসাহ পেলো আরো নতুন কিছু নিয়ে হাজির হবো সামনের দিনে।

  3. বিজ্ঞান প্রযুক্তিতে স্বাগতম
    অনেক ধন্যবাদ ভাই জান জটিল একটা ব্যপার নিয়ে পোস্ট করার জন্য:lol:অসাধারন হইছে:lol:

  4. স্বগতম বিপিতে। পোষ্ট টি পড়ে অনেক কিছু জানতে পারলাম। ধন্যবাদ শেয়ার করার জন্যে।

    • ধন্যবাদ ভাই। 🙂

      আশা করছি সামনে আরো ভাল কিছু দিতে পারবো বিপি-কে। আপনাদের উৎসাহ একান্ত কাম্য।

  5. দারুণ লেখা শাওন ভাই। আসলে সাইটের থিম সাইটের বিষয় অনুযায়ী ঠিক করতে হয়। যেমন পোর্টফলিও সাটের সবকিছু খুবই উচ্চ মানের হওয়া উচিৎ। ডিজাইন এর ব্যাপারে ব্লগ লিখলে মোটামুটি শক্তিশালী থিম দিতে হয়। কিন্তু ইন্টারনেটে আয়, ব্লগিং টিপস অথবা গল্প-কবিতার ব্লগ সব সময় সিমপিল রাখতে হয়। কি বলেন শাওন ভাই?

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.