অবশেষে বহুল প্রতীক্ষিত উইন্ডোজ ৮-এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করলেন মাইক্রোসফটের স্টিভেন সিনোফস্কি। তার মতে, এটি হচ্ছে এ যাবৎকালের সেরা উইন্ডোজ। তবে একই অনুষ্ঠানে মাইক্রোসফটের নির্বাহীরা এও প্রমাণ করার চেষ্টা করেছেন যে, উইন্ডোজ ৭ থেকে ততোটা ব্যতিক্রম নয় উইন্ডোজ ৮। এমনকি এই সংস্করণের জন্য আলাদা কোনো দামও প্রকাশ করা হয়নি।

উদ্বোধনের পর মধ্যরাত থেকেই যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন দোকান, মাইক্রোসফটের হার্ডওয়্যার পার্টনার, মাইক্রোসফট স্টোর থেকে কেনা যাবে উইন্ডোজ ৮। তবে ব্যবহারকারীরা নতুন এই উইন্ডোজে দু’টি উপায়ে যেতে পারবেন। তারা তাদের বর্তমান উইন্ডোজ ৭ কম্পিউটার থেকে উইন্ডোজ ৮ সংস্করণে আপগ্রেড করতে পারবেন অথবা উইন্ডোজ ৮ প্রিইন্সটলড কোনো পিসি কিনতে পারবেন।

পাশাপাশি উইন্ডোজ আরটি সংস্করণ চালিত টাচস্ক্রিন ট্যাবলেট ডিভাইসও মাত্র ৪৯৯ ডলারে পাওয়া যাবে, যাকে “কম দাম” বলে মন্তব্য করেছেন মাইক্রোসফটের নির্বাহী কর্মকর্তারা।

অনুষ্ঠান শুরুর আগে বরাবরের মতোই মাইক্রোসফট উইন্ডোজ ৭-এর সফলতা তুলে ধরে। মাইক্রোসফট জানায়, ৬৭০ মিলিয়নেরও বেশি লাইসেন্স বিক্রি করা হয়েছে উইন্ডোজ ৭-এর যা একে সবচেয়ে বেশি আকারে ছড়ানো অপারেটিং সিস্টেম করে তুলেছে। ব্যবসা প্রতিষ্ঠানেও অত্যন্ত দ্রুত উইন্ডোজ ৭ ব্যবহার করা শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছে মাইক্রোসফট। এছাড়াও এটি উইন্ডোজের সেরা সংস্করণ হিসেবেও প্রশংসা পেয়েছে বারবার।

মাইক্রোসফটের প্রধান নির্বাহী স্টিভ বলমার বললেন, এই পুরো অভিজ্ঞতাকেই আবার ঢেলে সাজানো হয়েছে। তৈরি করা হয়েছে সেরা উইন্ডোজ ৭-এর চেয়েও সেরা সংস্করণ, উইন্ডোজ ৮।

এর আগেরবার যখন মাইক্রোসফট তাদের অপারেটিং সিস্টেমকে ঢেলে সাজিয়েছিল, সেটা ছিল উইন্ডোজ ভিসতা যা মাইক্রোসফটকে বেশ বিড়ম্বনার মুখে ফেলে দিয়েছিল। তবে মাইক্রোসফট দ্রুতই ত্রুটিগুলো দূর করে উইন্ডোজ ৭ বের করে যা বেশ প্রশংসা কুড়াতে সক্ষম হয়। উইন্ডোজ ৮ নিয়ে ব্যবহারকারীদের মাঝে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা গেলেও অধিকাংশ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও হার্ডওয়্যার নির্মাতাই বলেছেন, এটি উইন্ডোজের ইতিহাসে সবচেয়ে খারাপ সংস্করণও হতে পারে। তবে মাইক্রোসফটের দাবি, উইন্ডোজ ৭ চালিত কম্পিউটারে উইন্ডোজ ৮ ইন্সটল করলে ব্যবহারকারী সঙ্গে সঙ্গেই ব্যাটারি ব্যাকআপ বাড়াতে পারবেন ১৩% এবং মেমোরির ব্যবহার কমাতে পারবেন ২২%। সব মিলিয়ে মোট ৪৫% দ্রুতগতির হয়ে যাবে উইন্ডোজ ৮ অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করা। মাইক্রোসফটের উইন্ডোজ প্ল্যানিং, হার্ডওয়্যার অ্যান্ড পিসি ইকোসিস্টেমের কর্পোরেট ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক অ্যাঙ্গিউলো তেমনটাই দাবি করেছেন।

মাইক্রোসফটের কর্মকর্তারা আরো বলেছেন, উইন্ডোজ ৭ থেকে উইন্ডোজ ৮ ততোটা ব্যতিক্রম নয়। উইন্ডোজ ৮-এ হয়তো স্টার্ট বাটন নেই, কিন্তু বাম দিকে নিচে লুকায়িত একটি বাটন রয়েছে যেটি ঠিক স্টার্ট বাটনের কাজ করবে। তবে যতোই এক রকম হোক না কেন, দৃশ্যত অনেক পরিবর্তন এসেছে উইন্ডোজ ৮-এ। মাইক্রোসফট নিজেই বলছে একে ঢেলে সাজানো হয়েছে, আবার তারাই বলছে এটা ততোটা ব্যতিক্রম আবার নয়। তাই এখন অপেক্ষা ব্যবহারকারীদের হাতে আসার। এবার ব্যবহারকারীরাই বলবেন আসলে কেমন হয়েছে মাইক্রোসফটের নতুন এই অপারেটিং সিস্টেমের সংস্করণটি।

comments

3 কমেন্টস

  1. যাই বলুন, এটা Android এর ছোট ভাই। কপি ছাড়া কিছু না।

  2. শেষ কথা এটাই 🙂
    “ব্যবহারকারীরাই বলবেন আসলে কেমন হয়েছে মাইক্রোসফটের নতুন এই অপারেটিং সিস্টেমের সংস্করণটি “

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.