অটিজম

বর্তমান পৃথিবীতে অটিজম খুবই বহুল প্রচলিত একটি শব্দ। অজ্ঞতা কিংবা নানা ধরনের ভুল ধারণা থাকার কারণে আমরা অনেকেই অটিজমে আক্রান্ত রোগীর সাথে স্বাভাবিক ব্যবহার করতে পারি না কিংবা সামাজিকভাবে তাদেরকে প্রাপ্য স্থানটুকু দিতে পারি না।

বিজ্ঞানীরা এটি প্রমাণ করতে সমর্থ হয়েছেন যে প্রতিষেধকের কারণে অটিজম স্পেকট্রাম ডিজঅর্ডার ঘটে থাকে না।আমাদের ডি এন এ-র অভ্যন্তরে এটির সঠিক আবাস খুঁজে বের করার সময় এসে গিয়েছে।

প্রিন্সটন বিশ্ববিদ্যালয় এবং নিউ ইয়র্ক শহরের সিমন্স ফাউন্ডেশনের বিজ্ঞানীরা একটি অত্যাধিক মাত্রায় সক্রিয় জিন পুল বা জিন পুকুরের মাঝে ৪০০-১০০০ জিনকে সনাক্ত করতে সমর্থ হয়েছেন যেগুলো অটিজমের ঝুঁকি হিসেবে ধরা হয়ে থাকে।

বিজ্ঞানীরা এই জিন পুলের মাঝে সনাক্তকারী যে ঝুঁকিমূলক জিন রয়েছে সেগুলোর মধ্যে এক ধরনের পরীক্ষা চালান। মস্তিষ্কের আণবিক গঠনের মাঝে এই জিনগুলো কিভাবে কাজ করে তা নিয়ে তারা নানা ধরনের গবেষণা চালান।পূর্ববর্তী যে সকল পরীক্ষাগুলো হয়েছে সেগুলোর মধ্যে বিশেষভাবে উল্লেখ্য হল শরীরের মাঝে জিনগুলো কিভাবে তাদের কর্ম সম্পাদন করে থাকে।

সবগুলো জিন একত্রিত করে বিজ্ঞানীরা সে সকল জিনগুলোকে বাছাই করেন যেগুলো অটিজমের জন্য ‘উত্তেজক’ হিসেবে কাজ করে থাকে। তারা এ ধরনের ডাটা সংগ্রহ করেন এবং তার মধ্য থেকে যাদের মস্তিষ্কে অটিজম স্পেকট্রাম ডিজঅর্ডারের জিন পাওয়া গিয়েছে তাদের আলাদা করে ফেলেন। ১ কোটিরও বেশি জিন থেকে বিজ্ঞানীরা ২৫০০ জিনকে সনাক্ত করতে সমর্থ হন যেগুলো অটিজমের সুপ্ত বাহক হিসেবে ভূমিকা পালন করে থাকে।

এই গবেষণার ফলে বিজ্ঞানীরা আশা করছেন যে অটিজমের জেনেটিক্যাল মূল ভিত্তি তারা সনাক্ত করতে সমর্থ হবেন এবং এর ফলে নতুন নতুন চিকিৎসা ও তার কৌশল তারা নির্ণয় করতে পারবেন।

এ বিষয়ে লেখা একটি বইয়ের সহযোগী লেখক অর্জুন কৃষ্ণ বলেন, “জেনেটিক প্রকৌশলীরা এর ফলে অটিজমবাহী যেসব জিনগুলো আছে সেগুলো সহজেই সনাক্ত করতে পারবেন এবং এর ফলে আলাদাভাবে কোন জিনগুলোর প্রতি বেশি জোর প্রদান করতে হবে তা সম্পর্কেও তারা একটা নতুন ধারনা আমাদের দিতে পারবেন।”

বিজ্ঞানীরা তাদের গবেষনা চালিয়ে যাচ্ছেন। আমাদের সামনে নতুন নতুন সব তথ্য এসে হাজির হচ্ছে। ধারণা করা যায় যে অচিরেই তারা আমাদের আশাব্যঞ্জক একটি খবর দিতে পারবেন। খুব সহজেই এবং সুলভে পাওয়া যাবে অটিজমের প্রতিকার।

 

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.